গাজার ‘পাশে’ বাংলাদেশি তারকারা

artcell
সমাজের কথা ডেস্ক॥
ফিলিস্তিনের গাজায় ইসরাইলি আগ্রাসনের প্রতিবাদে এবার সরব হলেন বাংলাদেশি তারকারা। আর তাদের এই প্রতিবাদ চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ফেইসবুক ও টুইটারে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হ্যাশট্যাগের ব্যবহারের দিক থেকে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় এখন গাজায় চলমান সহিংসতা। বাংলাদেশের তারকারাও তাদের ফেইসবুক এবং টুইটার পেইজ থেকে হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে স্ট্যাটাস দিয়ে সংহতি জানিয়েছেন ফিলিস্তিনের মানুষের সঙ্গে। দাবি জানিয়েছেন এই সহিংসতা বন্ধের।

বেশ বিস্তারিত একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন মাকসুদ ও ঢাকা ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা এবং ভোকাল মাকসুদ হক। তিনি লেখেন, “… শুধু গাজার ব্যাপারে সমর্থন দেখিয়ে হুজুগে বাঙালি হয়ে যাবেন না। ইরাকে চলমান অস্থিরতা এবং আইএসআইএস-এর মতো জঙ্গী সংগঠনের তাণ্ডবের উপরও প্রতিবাদ জানান। আপনি চিন্তিত হচ্ছেন ইহুদিরা মুসলিমদের মারছে দেখে, কখনও কি ভেবে দেখেছেন এই মুসলিমরাই কিন্তু মরছে তথাকথিত শিয়া-সুন্নি সংঘর্ষে? এবং আইএসআইএসকে অর্থ সহায়তা দিচ্ছে কারা? সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না এই জঙ্গী সংগঠনের মদদদাতা হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েলের সাথে হাত মিলিয়েছে তুরস্ক, সৌদি আরব, কুয়েত এবং কাতারের মতো মুসলিম-প্রধান দেশগুলো। কেউ কী পারবেন এই হত্যাকাণ্ডের ভয়াবহতা এড়িয়ে যেতে … সবকিছুর একটা সমাপ্তি টানা উচিত, এবং যথাযথভাবেই, পুরো বিশ্ব যেখানে উন্মত্ত এই সহিংসতায়।”

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি তার স্ট্যাটাসে লেখেন, “আমি গাজার সমর্থনে আছি। #সাপোর্টগাজা।” মডেল এবং অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া ও বিদ্যা সিনহা সাহা মীম একই হ্যাশট্যাগ দিয়ে ফেইসবুকে তাদের স্ট্যাটাস পোস্ট করেন। অভিনেতা ইরেশ জাকের #সাপোর্টগাজা হ্যাশট্যাগ দিয়ে তার স্ট্যাটাসে লেখেন, “আমি বাংলাদেশের ইরেশ জাকের, এবং আমি গাজার পাশে আছি।”

অভিনেত্রী সোহানা সাবা ও মডেল সুজানা জাফরও একইভাবে স্ট্যাটাস দিয়ে গাজায় ইসরায়েলি আগ্রাসনের নিন্দা জানান। অভিনেতা সাজ্জাদ রেজা এবং চলচ্চিত্র অভিনেতা, মডেল নিলয় আলমগীরও গাজার প্রতি সমর্থন জানিয়ে স্ট্যাটাস পোস্ট করেন।

সংগীতশিল্পী আনুশেহ আনাদিল তার স্ট্যাটাসে লেখেন, “আমি আনুশেহ আনাদিল, একজন বাংলাদেশের নাগরিক। আমি মানবতার পক্ষে আছি। কামনা করছি গাজায় একটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশের, যেখানে মানুষ তাদের স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারবে। এবং গাজার সমর্থনেই আছি। #সাপোর্টগাজা #ফ্রিপ্যালেস্টাইন।”

কণ্ঠশিল্পী এবং সংগীতপরিচালক শফিক তুহিন হ্যাশট্যাগ দিয়ে তার স্ট্যাটাসে লেখেন, “আমি শফিক তুহিন এবং আমি আমার হৃদয়ের ভেতর থেকে গাজাকে সমর্থন করছি। চাইছি স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র।” উদীয়মান সংগীত শিল্পী এহসান রাহীও একই ধরনের একটি স্ট্যাটাস ফেইসবুকে পোস্ট করেন।

পিছিয়ে নেই ব্যান্ড তারকারাও। গাজায় চলমান সহিংসতা বন্ধে তারাও একাত্মতা জানিয়েছেন গাজাবাসীর সঙ্গে। পেন্টাগন ব্যান্ডের ভোকাল আলিফ আলাউদ্দিন লেখেন, “আমি আলিফ এবং আমি গাজার সমর্থনে আছি। #সেইভগাজা।” ওয়ারফেইজের গিটারিস্ট অনি হাসানও একই ভাবে তার সমর্থন জানান গাজার মানুষদের প্রতি। ইসরায়েলি সহিংসতার প্রতিবাদ জানিয়ে সংগীতশিল্পী খায়াম সানু সন্ধি লেখেন, “গাজার সমর্থনেই আছি।”

এছাড়াও ব্ল্যাক, আর্টসেল এবং কার্নিভাল ব্যান্ডের অফিশিয়াল ফেইসবুক পেইজ থেকে গাজার সমর্থনে হ্যাশট্যাগ দিয়ে স্ট্যাটাস পোস্ট করা হয়।

হ্যাশট্যাগ স্ট্যাটাস ছাড়াও বিভিন্ন ছবি এবং লিঙ্ক শেয়ারের মাধ্যমে তারকারা গাজায় চলমান সহিংসতার খবরটি ছড়াতে চেষ্টা করছেন সব জায়গায়। ফ্রিল্যান্স আর্টিস্ট আলিফ নূর বিনতে গিয়াসের আঁকা একটি ছবিতে দেখা যায় বাংলাদেশি একজন গাজার শিশু এবং মহিলাদের বাঁচাতে ইসরায়েলরূপী এক কুকুরকে তাড়িয়ে দিচ্ছে। ছবিটি ফেইসবুকে শেয়ারও হয়েছে প্রচুর।

এছাড়াও অর্থহীন ব্যান্ডের ভোকাল এবং বেইজিস্ট ‘বেইজবাবা’ সুমনও বেশ কিছুদিন আগে গাজায় সহিংসতা বন্ধে একটি পিটিশনের লিঙ্ক শেয়ার করেন তার ফেইসবুক বন্ধু ও ভক্তমহলের সাথে। ক্রিপটিক ফেইট ব্যান্ডের ভোকাল শাকিব চৌধুরিও গাজার সমর্থনে পোস্ট করছেন বিভিন্ন লিঙ্ক।

গাজায় একটি শিশুর মৃতদেহ নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা এক বাবার ছবি ফেইসবুক-টুইটারে ছড়িয়ে পড়ার পরপরই শুরু হয় এই হ্যাশট্যাগ ঝড়।

শেয়ার