ঈদ সামনে রেখে শার্শার গোড়পাড়া ফাঁড়ির দু’দারোগার বিরুদ্ধে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ

ghos banijjo
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ শার্শার গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির দু’দারোগা আইনের লোক হয়ে রীতিমত বেআইনি কাজ শুরু করেছেন। তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব কর্তব্য জ্ঞান ভুলে নেমে পড়েছেন অর্থ বাণিজ্যে। আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে অর্থের পেছনে ছোটা ঐ দু’দারোগা বিভিন্ন মাধ্যম থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন অবৈধ মোটা অংকের টাকা। এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। আর এই সুযোগে এলাকায় বেড়ে গেছে চুরিসহ অপরাধ প্রবণতা। দু’দারোগার এহেন কর্মকান্ডে এলাকায় মানুষের মধ্যে পুলিশ সম্পর্কে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শার্শার গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত দু’দারোগা ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই খাইরুল ও সহকারী এএসআই সফিকুল। ঈদকে সামনে রেখে তারা ডিহি, নিজামপুর ও লক্ষণপুর এই তিনটি ইউনিয়নের বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে দু’দারোগা নানাভাবে অর্থ বাণিজ্য করছেন। এরা এলাকার জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের ঈদের আগে আটকের ভয় দেখিয়ে, বিভিন্ন সময়ে রাস্তায় যানবাহন তল্লাশি ও নাম্বার বিহীন মোটরসাইকেল আটকের মাধ্যমে, এলাকায় ৫০টিরও অধিক অবৈধ মাদকের স্পট ও জুয়ার আসর থেকে, সীমান্ত পথে অবৈধ মানুষ পারাপারের মাধ্যমে, সীমান্তের ছোট-বড় দাগি মাদক ব্যবসায়ী এবং চোরাচালানীদের ব্যবসার সুযোগ করে দিয়ে, কোন কোন সময় প্রকাশ্যে অবৈধ মালগাড়িসহ আসামি আটক করেও মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দিচ্ছে। এসব ক্ষেত্র থেকে ফাঁড়ির দু’দারোগা লাখ লাখ টাকার অর্থ বাণিজ্য করছেন।
কাশিপুরের একজন মাদক ব্যবসায়ী জানান, ফাঁড়ির দারোগা সফিকুল টাকা ছাড়া কিছু বোঝেনা। দিন রাত অধিকাংশ সময় তিনি এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে চুক্তির টাকা নেবার জন্য ছুটে আসছেন। দু’দারোগার হাতে সাধারণ মানুষও রেহায় পাচ্ছে না। পুলিশের ডিউটি বাদ দিয়ে দু’দারোগা অর্থ বাণিজ্যে মেতে থাকায় এলাকায় হঠাৎ করে বেড়ে গেছে চুরিসহ নানা অপরাধ। প্রতিদিন এলাকায় কোন না কোন স্থানে ঘটছে এসব ঘটনা। দু’দারোগার এহেন কর্মকান্ডে এলাকায় মানুষের মধ্যে পুলিশ সম্পর্কে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এসব বিষয়ে জানতে ফাঁড়িতে ০১৭১৮-৮৪৫৯৮৫ এই মোবাইল নাম্বার কয়েকবার ফোন দিয়েও কাউকে পাওয়া যায়নি।

শেয়ার