খুলনা বিভাগে ১ হাজার ৩শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণ করবে সরকার ॥ নির্মিত হবে সাড়ে ৬ হাজার কিঃমিঃ নতুন বিদ্যুৎ লাইন ॥আড়াই লাখ গ্রাহক নতুন সংযোগ পাবে

biddot
উত্তম ঘোষ ॥
বিদ্যুতের বাইরে থাকা প্রত্যন্ত গ্রামকে আলোকিত করতে নতুন বিদ্যুৎ-লাইন সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সরকার বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি লাইন সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় আড়াই লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ সংযোগ পাবে। এতে সরকারের ব্যয় হবে ১ হাজার ৩০০ কোটি ২৩ লাখ টাকা। চলতি মাস থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সরকার বিদ্যুৎ, শিক্ষা, কৃষি, তথ্য প্রযুক্তিসহ নানা খাতে উন্নয়ন করতে আগ্রাধিকার দেয়। তবে বিদ্যুৎ খাতকে সবচে বেশি অগ্রাধিকার দিতে দেখা যায়। এর ফলে সাড়ে সাত হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হয়। চাহিদার বিপরীতে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন দেশের ইতিহাসে এটাই প্রথম। কিন্তু এখনও অনেক জনগণ বিদ্যুতের সুবিধার বাইরে থাকায় সরকার কয়েকটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে। পল্লী¬ বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ খুলনা বিভাগীয় কার্যক্রম-২ নামক একটি প্রকল্প এরমধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশ পল্লী¬ বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) এ প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় আড়াই লাখ গ্রাহককে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেবে। এতে সরকারের ব্যয় হবে ১ হাজার ৩০০ কোটি ২৩ লাখ টাকা।
তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, ২০১৪ সালের জুলাই থেকে ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে খুলনা বিভাগের ৯টি পল্লী¬ বিদ্যুৎ সমিতি (যশোর-১, যশোর-২, ঝিনাইদহ, মাগুরা, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, সাতক্ষীরা খুলনা ও বাগেরহাট ) আওতাধীন এলাকায় এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে। এসব এলাকায় সাড়ে ৬ হাজার কিলোমিটার নতুন বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ, নবায়ন, পুনর্বাসন (নতুন ৫ হাজার ৬০০ কিলোমিটার ও ৯০০ কিঃমিঃ নবায়ন, পুনর্বাসন), ২৩টি ৩৩/১১ কেভি উপকেন্দ্র নির্মাণ/ক্ষমতাবর্ধনের মাধ্যমে আড়াই লাখ গ্রাহককে সংযোগ দেওয়া হবে। এ প্রসঙ্গে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির একজন কর্মকর্তা জানান, আগামীকাল বৃহস্পতিবার প্রকল্পটির ওপর রাজধানীর শেরেবাংলা নগরস্থ পরিকল্পনা কমিশনে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হবে।
পল্লী¬ বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) সূত্রে জানা গেছে, খুলনা বিভাগে ৪৫ হাজার ৭৯৪ কিলোমিটার নতুন বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণ করা প্রয়োজন। ইতোমধ্যে এ বিভাগের আওতায় প্রায় ৩৪ হাজার ৫০০ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মাণ করা হয়েছে। অবশিষ্ট এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহে আরও ১১ হাজার ২৯৪ কিমি নতুন লাইন নির্মাণের প্রয়োজন হবে।
এদিকে, নতুন আড়াই লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ সংযোগের আওতায় আসার খবরে বিদ্যুৎ বঞ্চিত সাধারণ মানুষ আনন্দ প্রকাশ করেছেন। শার্শার শালকোন গ্রামের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম, আনোয়ারা খাতুন, আবুল কাশেমসহ একাধিক ব্যক্তি সমাজের কথাকে জানান, তাদের গ্রামে বিদ্যুত থাকলেও তাদের বাড়ি সংযোগ নেই। তারা দীর্ঘদিন ধরে জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্টদের পিছে পিছে ঘুরেও নতুন সংযোগ পাননি। এবার সরকার নতুন গ্রাহকের সংযোগ দিলে তারা যাতে এর আওতায় আসেন এজন্য বিদ্যুত বিভাগের সংশ্লিষ্টদের কাছে আবেদন করেছেন।

শেয়ার