সাফল্যের কৌশল দেখতে বাংলাদেশ সফরে আগ্রহী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

PM Cameron
সমাজের কথা ডেস্ক॥
বাংলাদেশের মৌলবাদ মোকাবেলা ও সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অর্জনের প্রশংসা করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। বাংলাদেশ সফর করে এই অর্জনের কৌশল নিজ চোখে দেখতে ও জানতে চান তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক আলোচনায় এ কথা বলেন ক্যামেরন।
মঙ্গলবার সকালে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে এই বৈঠক হয়।
স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টা থেকে প্রায় ৪৫ মিনিটের আলোচনায় বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের প্রতি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর আস্থার প্রকাশ ঘটেছে বলে পরে সাংবাদিকদের কাছে ব্রিফিংয়ে উল্লেখ করেন পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ ও আন্তরিক পরিবেশে দুই প্রধানমন্ত্রীর আলোচনা হয়।
বাংলাদেশ সফরের আগ্রহ প্রকাশ করে ডেভিড ক্যামেরন বলেন, বাংলাদেশ সামাজিক উন্নয়নে যে সাফল্য দেখিয়েছে তার কৌশল আমি নিজ চোখে দেখতে চাই।
এছাড়া মৌলবাদের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় শেখ হাসিনার সরকারের দক্ষতার কৌশলও জানতে চান তিনি। বাংলাদেশে বিশেষ করে সিলেট অঞ্চল সফরের আগ্রহ দেখান ক্যামেরন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসময় বাংলাদেশ সফরের জন্য আন্তরিক আমন্ত্রণ জানান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে।
পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব একেএম শামীম চৌধুরী সাংবাদিকদের কাছে দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।
তারা জানান, বৈঠকে দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন দিক উঠে এসেছে। বাংলাদেশের অব্যাহত আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, নারীর অধিকার ও নারী স্বাধীনতায় যে অগ্রগতি তার ভূয়সী প্রশংসা করেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, দুই দেশ অনেক দিনের বন্ধু। এই সম্পর্কের পাশাপাশি বাংলাদেশের প্রতি যুক্তরাজ্যের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।
বাংলাদেশের এমডিজি’র অর্জনের প্রশংসা করে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে যে সামাজিক আন্দোলন গড়ে উঠেছে তা প্রশংসনীয়। আর সে কারণেই এই সম্মেলনে তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ডেভিড ক্যামেরনের সঙ্গে বৈঠকে ছিলেন আন্তর্জাতিক উন্নয়ন মন্ত্রী ডেসমন্ড সোয়াইন ও সাইয়েদা ওয়ার্সি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী কে এম মাহমুদ আলী এবং নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ।

শেয়ার