কুমির থেকে রক্ষা!

crocodile
সমাজের কথা ডেস্ক॥ অল্পের জন্য কুমিরের কাছ থেকে প্রাণে রক্ষা পেলেন অস্ট্রেলিয়ার একজন চিড়িয়াখানাকর্মী। দেশটির নিউ সাউথ ওয়ালসের একটি চিড়িয়াখানায় কুমিরকে খাওয়াতে গিয়ে নিজেই খাবার হতে বসেছিলেন ট্রেন্ট বার্টন নামে ৩১ বছর বয়সী ওই চিড়িয়াখানাকর্মী।
জন নামের ১২ ফুট দৈর্ঘ্যের পুরুষ কুমিরটি তাকে কামড়ে ধরে পানিতেও নিয়ে গিয়েছিল। সেখান থেকে তিনি কোনরকমে ছাড়া পান বলে বিবিসি জানিয়েছে। বার্টনের দুইহাতে কুমিরে কামড়ে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। জন ও তারসঙ্গী নারী কুমির ডন ১০ বছর ধরে সোয়ালহেভেন চিড়িয়াখানায় রয়েছে।

চিড়িয়াখানাটির অবস্থান সিডনি থেকে ১০০ মাইল দক্ষিণে নিউ সাউথ ওয়েলসের উপকূলে।
প্রত্যক্ষদর্শী একজন বয়োবৃদ্ধ ব্যক্তি মিশেল ওর এই হামলাকে তার দেখা ভয়ঙ্করতম বলে বর্ণনা করেছেন।
তিনি বলেন, “আমরা দেখি কুমিরটি ওই প্রশিক্ষককে (বার্টন) নিয়ে গেছে।”
“তাকে (কুমির) আমরা দেখতাম নদীর তীরে শুয়ে আছে। কিন্তু কখনো এমনরূপে দেখিনি,”- বলেন ওর।
অপর একজন প্রত্যক্ষদর্শী মিশেল ব্রাডি জানান, তার বেঁচে ফিরে আসার সুযোগ ছিল খুব কম।
ব্রাডি বলেন, “তিনি (বার্টন) কুমিরটিকে খাবারের মাংস দিচ্ছিলেন। কিন্তু কুমিরটি সেই মাংস ঠিকভাবে নিতে পারেনি। তখন ওই প্রশিক্ষক মাংস পিন্ডটি কুমিরের মুখের দিতে চাইলে প্রাণীটি তার হাত কামড়ে ধরে পানিতে টেনে নিয়ে যায়। ওই প্রশিক্ষক (বার্টন) কোন রকমে হাতটি ছাড়িয়ে পানি থেকে উঠে আসেন।”
সোয়ালহেভেন চিড়িয়াখানার মালিক নিক স্কিলকো বলেন, এক দশকেরও বেশি সময় ধরে বার্টন নোনাপানির কুমির প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছেন। অবশ্যই এটা আমাদের জন্য খুবই দুঃখজনক বিষয়। কিন্তু তারপরও আনন্দিত যে, বিষয়টি শেষপর্যন্ত গুরুতর কোন পর্যায়ে যায়নি। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তার বিষয়গুলো আবারও খতিয়ে দেখবে বলে জানিয়েছে।

শেয়ার