যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে দালাল ধরে পুলিশে দিলেন ডা. শামীম

Doctor
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে আবারও দালালচক্রের উৎপাত বেড়েছে। হাসপাতালের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা স্থাপনের পর বেশ কমেছিল দালালচক্রের দৌরাত্ব কিন্তু হঠাৎ-ই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে চক্রের সদস্যরা। রোগী ও স্বজনদের টার্গেট করে পিছু নিচ্ছে। সময় সুযোগ মতো প্রতারণার খপ্পড়ে ফেলে লুটে নিচ্ছে সবকিছু। সোমবার সকালে এক ডাক্তার পলাশ (২৫) নামে এক দালালকে হাতে নাতে ধরে পুলিশে দেন। আটক পলাশ ঘোপ নওয়াপাড়া রোড এলাকার কানু মিয়ার ছেলে।
হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে হাসপাতালের দালালচক্রের সদস্য পলাশ হাসপাতালের বহিঃবিভাগ অর্থ ও দন্ত বিভাগের সামনে অবস্থান করে গ্রাম থেকে আসা সহজ-সরল রোগীদের বিভিন্নভাবে বুঝিয়ে তার নিয়ন্ত্রণাধীন ক্লিনিকে নিয়ে যাচ্ছিল। বিষয়টি হাসপাতালের ডেন্টাল সার্জন ডাঃ শামীম আহম্মেদ বুঝতে পারলে পলাশকে হাতে নাতে ধরেণ। পরে তিনি হাসপাতালের কর্তব্যরত পুলিশ কন্সেটবেল সিদ্দিকের কাছে সোপর্দ করেন। তখন সিদ্দিক কোতয়ালী থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়। এদিকে প্রতিনিয়ত হাসপাতালে আগত রোগীরা এই ১০/১২ জন দালাল চক্রের কাছে প্রতারিত হচ্ছে। বিষয়টি হাসপাতালে উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা তাদের চিনলেও আটক করে না বলে অভিযোগ রয়েছে। নগদ নারায়নে তুষ্ঠু হয়ে দালালীর সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছে বলে সুত্রে দাবি করা হয়েছে। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ ইয়াকুব আলী মোল্লাু বলেন, বিষয়টি শুনেছি। ছুটিতে থাকায় সঠিকভাবে কিছু বলতে পারছিনে।

শেয়ার