চৌগাছায় আ’লীগ কর্মী শহিদুল খুন ॥ লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ॥ আতঙ্কিত এলাকাবাসীর প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

lotpat
নিজস্ব প্রতিবেদক, চৌগাছা॥ যশোরের চৌগাছায় আওয়ামীলীগের কর্মী শহিদুল ইসলাম (৩০) নিহত হওয়ার ঘটনায় ব্যাপক লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। হামলা ও লুটপাটের ঘটনা এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। এলাকাবাসি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
সূত্র জানায়, জমাজমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার সন্ধায় উপজেলার ছোট দিঘড়ী গ্রামে শহিদুল ইসলাম (৩০) নামের আওয়ামীলীগের এক কর্মী নিহত হন। এই হত্যা ঘটনাকে পুঁজি করে স্থানীয় কতিপয় সন্ত্রাসী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তারা ওই রাতে এবং শুক্রবার সকালে দফায় দফায় হামলা, ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে। সন্ত্রাসীরা এ সময় দিঘড়ী গ্রামের শফি উদ্দিনের ছেলে সলেমানের বাড়িতে ব্যাপক লুটপাট চালায়। সেখান থেকে অন্তত ৬ ভরি স্বর্ণালংকার, ৪টি হালের গরু, ৮টি ছাগল, ২৫ মন চাল, ১ মন ডাল, ৫ মন আলু এবং ঘরে রাখা সকল আসবাবপত্র ও পোশাক নিয়ে যায়। হামিদের বাড়ি থেকে নগদ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, ৪টি হালের গরু, ৯টি ছাগল, চাল, ডাল ও আসবাবপত্র লুন্ঠন করে সন্ত্রাসীরা। একই রাতে তারা গ্রামের বেশ কিছু বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এছাড়া শুক্রবার সকালে শফি উদ্দিনের ছেলে জামালের বাড়ি থেকে সন্ত্রাসীরা ৩টি গরু, ৭টি ছাগল, ঘরে রাখা সকল প্রকার আসবাবপত্র নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি বেশ কিছু বাড়ি ঘরে অগ্নিসংযোগ করে। হত্যা ঘটনাকে পুজি করে সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হবার কারনে নিরীহ সাধারণ মানুষ ভীত সন্ত্রস্ত¿ হয়ে পড়েছে। গ্রামের সাধারণ লোকজন সন্ত্রাসী হামলা থেকে মুক্তি পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। উল্লেখ্য, উপজেলার স্বরুপদাহ ইউনিয়নের ছোট দিঘড়ী গ্রামের আব্দুল হামিদ, আবুল হোসেন ও আলতাফ হোসেনের সাথে একই গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে শহিদুল ইসলামের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। প্রায় ২০/২৫ বছর ধরে এই জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। বৃহস্পতিবার বিকালে আ’লীগ কর্মী শহিদুল ইসলাম দিঘড়ী মাঠে জমিতে কাজ করতে গেলে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হয়।

শেয়ার