‘সবচেয়ে বাজে প্রেসিডেন্ট ওবামা’

obama
সমাজের কথা ডেস্ক॥ সাম্প্রতিক মাসগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার জনপ্রিয়তার পারদ দ্রুত নিচে নামছে। এরই মধ্যে দেশটির এক বিশ্ববিদ্যালয়ের জরিপে তাকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে বাজে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মনোনীত করেছে।
বুধবার কানেকটিকাট রাজ্যের কুইনিপিয়াক বিশ্ববিদ্যালয় এই জরিপটি পরিচালনা করে বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন টাইমস।
ইরাকে সেনা পাঠানো, কংগ্রেসে বিরোধীদলের সঙ্গে সমঝোতা করতে ব্যর্থ হওয়া, সর্বোচ্চ আদালতে মামলায় হারা ইত্যাদি কারণে ভোটাররা ওবামার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। নতুন কয়েকটি জরিপে দেখা গেছে, আগের চেয়ে বেশি ভোটার এখন মনে করছেন ২০১২ সালে রিপাবলিকান মিট রমনিকে নির্বাচন করাই সঠিক হতো।
কুইনিপিয়াকের জরিপে ৪৫ শতাংশ ভোটার বলেছেন, রমনি নির্বাচিত হলে দেশ আরো ভালো ভাবে পরিচালিত হতো, আর ৩৮ শতাংশ ওবামার পক্ষে সমর্থন জানিয়েছেন।
এমনকি ওবামার ডেমক্রেট দলীয় সমর্থকদের মধ্যেও দ্বিধা লক্ষ্য করা গেছে, ৭৪ শতাংশ তার পক্ষে সমর্থন জানালেও বাকীরা বিপরীতটিই ঠিক বলে মনে করছেন অথবা পরিষ্কার কোনো অবস্থান জানাতে পারেননি।
ভোটারদের একটি অংশ ২০০৯ সালে “আশা ও পরিবর্তনের” প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচিত হওয়া ওবামাকে তার পূর্বসূরী জর্জ ডব্লিউ বুশের চেয়েও খারাপ প্রেসিডেন্ট হিসেবে রায় দিয়েছেন।
প্রেসিডেন্ট পদ থেকে বিদায় নেয়ার সময় বুশের জনপ্রিয়তা ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর যুক্তরাষ্ট্রের যত প্রেসিডেন্টে এসেছেন তাদের মধ্যে সবচেয়ে কম। এবার ওবামাও তাকে ধরে ফেলছেন বলে আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে।
কুইনিপিয়াকের জরিপ দলের সহকারী পরিচালক টিম ম্যালয় বলেন, “দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর আমেরিকার ইতিহাসে যে ১২ জন প্রেসিডেন্ট এসেছেন তাদের মধ্যে জনপ্রিয়তায় জর্জ বুশের সঙ্গে সবচেয়ে তলানীতে আছেন প্রেসিডেন্ট ওবামা।”

শেয়ার