বিশ্বকাপের আগে ব্রাজিলে দাঙ্গা

55

rail
সমাজের কথা ডেস্ক॥ ফুটবল বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আছে আর মাত্র চারদিন। এমন সময় ব্রাজিলের বৃহত্তম শহর উদ্বোধনী ভেন্যু সাও পাওলোতে চলছে মেট্রো ধর্মঘট।
বৃহস্পতিবার শুরু হওয়ার এ ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার ধর্মঘটী প্রতিবাদকারীদের সঙ্গে পুলিশের হাঙ্গামায় শহরজুড়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় বলে বিবিসি জানিয়েছে।
এ দিন প্রতিবাদকারীদের ছত্রভঙ্গ করার উদ্দেশে পুলিশ কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করলে শহরজুড়ে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে।
মেট্রোর শ্রমিকরা তাদের বেতন ১০ শতাংশ বাড়ানোর দাবিতে এ ধর্মঘট ডেকেছে।
মেট্রো ধর্মঘটের কারণে শহরের প্রায় অর্ধেক স্টেশন বন্ধ থাকায় সাও পাওলোর রাস্তায় বিশাল ট্র্যাফিক জ্যাম তৈরি হয়। ১২ জুন বৃহস্পতিবার এ শহরটিতেই বিশ্বকাপ ফুটবলের উদ্বোধনী ও প্রথম খেলাটি অনুষ্ঠিত হবে।
ধর্মঘটীদের সঙ্গে নতুন করে সমাঝোতার চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর ধর্মঘট আগের মত্ইো বহাল থাকে।
শুক্রবার সকালে সাও পাওলোর এক তৃতীয়াংশ মেট্রো স্টেশন বন্ধ ছিল। এতে সকালের ব্যস্ত সময়ে শহরজুড়ে ২০০ কিলোমিটারেরও বেশি ট্র্যাফিক জ্যাম সৃষ্টি হয়।
এরমধ্যে শহরের কেন্দ্রস্থলের আনা রোসা স্টেশনের সামনে ধর্মঘটীদের সঙ্গে হাঙ্গামায় জড়িয়ে পড়ে পুলিশ। ধর্মঘটীদের মিছিলে বাধা দিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করার উদ্দেশে পুলিশ কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করলে হাঙ্গামা শুরু হয়। এ সময় পুলিশ লাঠিপেটাও করে।

ব্রাজিলের সামরিক পুলিশের এক মুখপাত্র বলেছেন, একটি কম্যুটার ট্রেন স্টশনে প্রবেশের মূহুর্তে ধর্মঘটিরা বাধা দিলে দাঙ্গা শুরু হয়, এ পরিস্থিতিতে কর্মকর্তারা হস্তক্ষেপ করেন।
মেট্রোর এই ধর্মঘট ও মুষলধারার বৃষ্টি বিশ্বকাপের আগে ব্রাজিলের শেষ প্রীতি ম্যাচের সময় মাঠে উপস্থিত ৬০ হাজার দর্শকের ধৈর্য্যের পরীক্ষা নিয়ে নেয়। সাও পাওলো স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ওই খেলায় ব্রাজিল ১-০ গোলে সার্বিয়াকে পরাজিত করে।
বৃহস্পতিবার ফিফার প্রেসিডেন্ট সেপ ব্লাটার বলেছেন, “আশি আশাবাদী। টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে বলে আশা করছি আমি।”

শুক্রবার ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট দিলমা রৌসেফ বলেছেন, বিক্ষোভকারীদের টুর্নামেন্টে বিঘ্ন ঘটানোর সুযোগ দেয়া হবে না।

LEAVE A REPLY