শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ মোদির

Modi Hasina
সমাজের কথা ডেস্ক॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
মঙ্গলবার দুপুরে নয়া দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।
ওই বৈঠকে ভারতের নতুন প্রধানমন্ত্রী তিস্তার পানি বণ্টন ও স্থল সীমান্ত চুক্তিসহ দুই দেশের অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধানে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।
“তিস্তার পানি বণ্টন ও স্থল সীমান্ত চুক্তির মতো অমীমাংসিত দ্বিপক্ষীয় ইস্যুগুলোর সমাধানের বিষয়টি সক্রিয়ভাবে বিবেচনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মোদি। এসব সমস্যার সমাধানে তিনি অত্যন্ত আগ্রহী,” বলেন স্পিকার শিরীন শারমিন।

এ সময় ভারতের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিনন্দন বার্তা পৌঁছে দেন স্পিকার, যে বার্তায় দুই দেশের সম্পর্ককে ‘নতুন উচ্চতায়’ নিয়ে যেতে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়।

ওই চিঠিতে মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানানো হয়।

নরেন্দ্র মোদি সম্ভাব্য দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ সফরের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে স্পিকার জানিয়েছেন।

পরে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিং সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও স্পিকার শিরীন শারমিনের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নয়া দিল্লি সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

নিরাপত্তা থেকে বাণিজ্য এবং বিদ্যুৎ থেকে যোগাযোগ পর্যন্ত সব ক্ষেত্রে ভারত-বাংলাদেশের দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতামূলক সম্পকর্কে এগিয়ে নিতে মোদি অত্যন্ত আগ্রহী বলেও জানান সুজাতা।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা বলেন, “অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধান হবে।

“বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের দীর্ঘ দিনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে।”

এছাড়া দারিদ্র্য বিমোচন ও ক্ষুদ্র ঋণের মতো বিষয়গুলোতে বাংলাদেশের অগ্রগতির প্রশংসা করেন মোদি।
সোমবার ভারতের পঞ্চদশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়া মোদি এদিন শিরীন শারমিন ছাড়াও দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন, যারা তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাপান সফরে থাকায় মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

শেয়ার