যশোরে বিভিন্ন অভিযোগে বিএনপি নেতাসহ আটক ১৪

atok
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে বিভিন্ন অভিযোগে বিএনপি নেতা, চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীসহ ১৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।আটককৃতরা হলো, সদর উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, উপজেলার কামালপুর গ্রামের বাবলু, বাবু, সিরাজসিংহা গ্রামের মিন্টু, শহরের রেল স্টেশন এলাকার মাদক দম্পত্তি আব্দুর রহিম ও আছিয়ার ছেলে চিহ্নিত সন্ত্রাসী আসানুর রহমান রনি, বারান্দী নাথ পাড়ার মনির কসাই, শার্শা উপজেলার কাশিপুর গ্রামের নাসির উদ্দিন, নড়াইলের কালিয়া উপজেলার বারোইপাড়ার ইখলাছ হোসেন, শহরের পুলিশ লাইন টালি খোলা এলাকার ইয়াছিন ইসলাম, ঘোপ জেলরোড এলাকার ইমরুল কায়েস, ঘোপ বেলতলা বৌ বাজার এলাকার আরিফ হোসেন, উপশহর এলাকার সুমন হোসেন এবং শহরতলীর বিরামপুর এলাকার আফাস হোসেন ও গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানি উপজেলার ফুকরা গ্রামের জনি মুন্সি।
পুলিশ জানায়, বুধবার বিকেলে শহরের জেল রোড থেকে ৬ জনকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে সদর উপজেলার বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন রামনগর ইউনিয়ন বিএনপির ক্যাডার বাবু, বাবলু ও মিন্টু রয়েছে। এ ছাড়া শহরের রেল স্টেশন এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী আসানুর রহমান রনি ও বারান্দী নাথ পাড়ার কসাই মনির রয়েছে। এদের সকলকেই নাশকতা মামলায় আদালতে চালান দিয়েছে পুলিশ। বুধবার রাতে থানা পুলিশের অপর দু’টি টিমের অভিযানে ১২০ বোতল ফেনসিডিলসহ ৩ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। তারা হলো, জনি মুন্সি ইখলাছ মোল্যা ও নাসির উদ্দিন। এ ব্যাপারে পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে পৃথক দু’টি মামলা করেছে।
এ ছাড়া উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আনোয়ার হোসেন বুধবার রাতে উপশহর খাজুরা বাসস্ট্যাান্ড থেকে ছিনতাইকারী সন্দেহে ৫ জন কিশোর আটক করে। ওই দিন গভীর রাতে পুলিশ দেখে তারা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে ধাওয়া করে তাদের আটক করে। তাদের কাছ থেকে একটি চাকু উদ্ধার করা হয়।
পুলিশ জানিয়েছে, আটক কিশোরদের জেএস নামে একটি সংশোধন কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের হেফাজতে দেয়া হয়েছে।

শেয়ার