মন্ত্রী সভায় খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের খসড়া অনুমোদন ॥ প্রধানমন্ত্রীকে বিভিন্ন মহলের অভিনন্দন

kulna montrishova
খুলনা ব্যুরো॥ খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের খসড়া মন্ত্রী সভায় অনুমোদন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ তাঁর মন্ত্রী পরিষদের সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের কৃষি খাতকে আরো দক্ষ, উন্নতি ও আধুনিক কৃষি ব্যবস্থা চালু এবং কৃষিতে সাফল্য অর্জনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল ধরনের পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। সীমিত সম্পদ এবং সময়ের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া প্রতিশ্রুতি ইতিমধ্যে একে একে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। যা বাংলাদেশের ইতিহাসে মাইল ফলক হয়ে থাকবে। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময়ই খুলনাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের কথা ভেবে উন্নয়নে সর্বাধিক অর্থ বরাদ্দ ও গুরুত্ব দিয়ে কাজ করেন। তাঁর প্রতিশ্রুতি মোতাবেক খুলনায় স্কুল কলেজ সরকারী করণসহ বন্ধ পাটকল চালু করেছেন। সর্বশেষ মঙ্গলবার খুলনার মানুষকে কৃষিতে দক্ষ ও আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন আইনের খসড়া অনুমোদন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। এজন্যে খুলনাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ শেখ হাসিনা এবং তাঁর সরকারের সকল মন্ত্রী ও সচিবসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে কৃতজ্ঞ। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কার্যক্রম শুরু করার জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের দায়িত্বশীল সকল কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানান। বিবৃতিদাতারা হলেন, কেন্দ্রিয় নেত্রী, সাবেক মন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এমপি, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক হুইপ এস.এম মোস্তফা রশিদী সুজা এমপি, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪দলের সমন্বয়ক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান এমপি, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি, সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাড. সোহরাব আলী সানা, সাবেক সংসদ সদস্য মোল্লা জালাল উদ্দিন, শেখ হায়দার আলী, কাজী এনায়েত হোসেন, এ্যাড. শেখ নুরুল হক এমপি, পঞ্চানন বিশ্বাস এমপি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী আব্দুল হাদি, মল্লিক আবিদ হোসেন কবির, এ্যাড. রজব আলী সরদার, এমডিএ বাবুল রানা, শেখ সিদ্দিকুর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম খান, তেরখাদা উপজেলা চেয়ারম্যান সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, শ্যামল সিংহ রায়, এ্যাড. ফরিদ আহমেদ, অমিয় সরকার গোরা, মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, অধ্যপক মিজানুর রহমান, এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, আজমল আহমেদ তপন, শেখ সৈয়দ আলী, দিঘলিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান খান নজরুল ইসলাম, ফুলতলা উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আকরাম হোসেন, দাকোপ উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন, রূপসা উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বাদশা, বেগ লিয়াকত আলী, একেএম সানাউল্লাহ নান্নু, আবুল কালাম আজাদ কামাল, এ্যাড সাইফুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম বাশার, স.ম রেজওয়ান, মোল্লা আকরাম হোসেন, গাজি হাফিজুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান হায়দার আলী মোড়ল, মারুফুল ইসলাম, এস.এম গোলাম রহমান, শাহজাহান পারভেজ, শহিদুল ইসলাম বন্দ।

শেয়ার