বীর শ্রেষ্ঠ রুহুল আমীনের স্মৃতি বিজড়িত বিএনএস বিশখালীর ডি-কমিশনিং সম্পন্ন

Bagerhat Photo
বাগেরহাট প্রতিনিধি॥ দীর্ঘ প্রায় ৩৬ বছর সফলতার সাথে অপারেশন কর্মকান্ড পরিচালনার পর নৌ বহর হতে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর জাহাজ বিশখালীকে আনুষ্ঠানিকভাবে ডি-কমিশনিং করা হয়েছে। মঙ্গলবার মংলায় অবস্থিত দিগরাজ নৌ জেটিতে খূলনা নৌ অঞ্চলের আঞ্চলিক কমান্ডর কমডোর শাহীন ইকবাল নৌ বাহিনীর ঐতিহ্যবাহী রীতিতে জাহাজটিকে নৌ বহর হতে ডি-কমিশনিংয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন। এ সময় খুলনা নৌ অঞ্চলের উচ্চপদস্থ কর্মকতাগনসহ বিপুল সংখ্যক নাবিক উপস্থিত ছিলেন।
১৯৭৮ সালের ২৩ নভেম্বর বিএনএস বিশখালী বাংলাদেশ নৌ বাহিনীতে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে। তৎকালীন নৌবাহিনী প্রধান রিয়াল এডমিরাল এম এ খাণ জাহাজটিকে নৌ বাহিনীতে কমিশনিং করেন। এর আগে জাহাজটি ১৯৬৬ সালে ইংল্যান্ড হতে সংগ্রহ করে পূর্ব পাকিস্তানে এনে পিএন এস যশোর নামকরন করা হয়। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় জাহাজটি পাক বাহিনীর বিমান হামলায় কর্নফুলী নদীতে ডুবে যায়। এ সময় বীর শ্রেষ্ঠ রুহুল আমীন ওই জাহাজে কর্মরত অবস্থায় শহীদ হন। পরে ১৯৭৪ সালে জাহাজটি উদ্ধার ও সংস্কারের পর থেকে ফের নৌ বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। পরবর্তীতে অপারেশনাল সীমাবদ্ধতার কারনে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর বহর হতে ডি-কশিশনিং করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

শেয়ার