বিএনপির ধমকে দেশত্যাগ করেছিলেন ড. কামাল

Hasan
সমাজের কথা ডেস্ক॥
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন সে সময়ের মেয়র বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার আবুল হাসনাতের ধমক খেয়ে দেশত্যাগ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ ছিলেন। তার উপর যে কর্তব্য ছিলো তা তিনি পালন করেন নি।
বুধবার বিকেলে জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত কমিটির মিটিং শেষে ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পদাক ড. হাছান মাহমুদ।
এসময় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট টিপু সুলতান, নবী নেওয়াজ, গোলাম রব্বানী উপস্থিত ছিলেন।
কমিটির সভাপতি হাছান মাহমুদ বলেন, ১৯৭৮ সালে জিয়াউর রহমান দেশের রাষ্ট্রপতি ছিলেন। তখন এমএজি ওসমানীও ছিলেন রাষ্ট্রপতি প্রার্থী। এমএজি ওসমানীর পক্ষে ড. কামাল হোসেনের ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল। তখন ঢাকার মেয়র ছিলেন বিএনপি নেতা আবুল হাসনাত। জনসভায় ভাষণ দেওয়ার আছে আবুল হাসনাতের ধকম খেয়ে ড. কামাল দেশত্যাগ করেন।
তিনি আরও বলেন, ড. কামাল হোসেন বঙ্গবন্ধু পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে একটি বিবৃতিও দেন নি। কিন্তু তৎকালীন জার্মানিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হুমায়ূন রশিদ চৌধুরী বঙ্গবন্ধুকন্যাকে আশ্রয় দিয়েছিলেন। তিনি চাকরির ভয় করেন নি।

শেয়ার