বর্জ্য ব্যবস্থাপনা টেকসই করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

bd cabinet
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা টেকসই ও পরিবেশ সম্মত ব্যবহার নিশ্চিত করতে দেশের সব সিটি করপোরেশনের কাছে বর্জ্য চেয়েছিল সরকার। তবে সিটি করপোরেশনগুলো বর্জ্য প্রদানে আগ্রহ না দেখিয়ে নিজেরাই তা বিক্রি অব্যাহত রেখেছে।

যা শিগগিরই বন্ধ করে দেশের সব সিটি করপোরেশন থেকে গৃহস্থালির বর্জ্য সংগ্রহ করতে জোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত সাপ্তাহিক বৈঠকে তিনি এ নির্দেশ দেন।

বৈঠকে উপস্থিত একজন মন্ত্রী বাংলানিউজকে জানান, মন্ত্রীসভার বৈঠকে নদী দূষণ নিয়েও কথা হয়েছে। কিভাবে নদীর দূষণ রোধ করা যায় এবং বিশুদ্ধতা আনা যায় এ সব ব্যাপার নিয়ে কথা হয়েছে।

শীতলক্ষ্যা, তুরাগ ও বুড়িগঙ্গা নদীর পানি প্রবাহ কিভাবে ঠিক রাখা যায় সে ব্যাপারেও কথা হয়েছে বলে বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন তিনি।

তিনি জানান, মন্ত্রীসভা বৈঠকের শুরুতেই বেশ গুরুত্বের সঙ্গে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ে কথা হয়েছে। বর্জ্য শোধন করে বিদ্যুৎ প্লান্ট নির্মাণ করে দেশের বিদ্যুত চাহিদা পূরণের ব্যাপারেও আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়াও বর্জ্যের সর্বোচ্চ ব্যবহারের বিষয়টিও উঠে এসেছে বৈঠকে।

মন্ত্রী বলেন, দেশের সিটি করপোরেশনগুলো বর্জ্য দিতে চাচ্ছে না। গৃহস্থালির এসব বর্জ্য সিটি করপোরেশন বিক্রি করে। তারা জায়গা ভরাট করতে বর্জ্য বিক্রি করে। আবার বর্জ্য পরিবহনে ট্রাক ব্যবহার করে দেশের সিটি করপোরেশনগুলো।

ট্রাক চলতে তেল খরচ হয়, যা থেকেও কিছু কর্মকর্তা অর্থ সরায়। তাই এ খাত থেকে নিজেদের লাভের কথা ভেবে সরকারকে এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ২০০ থেকে ২৫০টি ট্রাক রয়েছে। যেগুলো থেকে বড় আয় আসে।

তবে প্রধানমন্ত্রী নদীগুলোকে রক্ষা করতে এবং বর্জ্যের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে সিটি কর্পোরেশনগুলোকে ময়লা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ফলে নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা ফেললে পরিবেশ দূষণ এবং নদী দূষণ কমবে বলেও জানান ওই মন্ত্রী।

শেয়ার