কৃষিতে ভর্তুকির বদলে প্রণোদনা

muhit
সমাজের কথা ডেস্ক॥
আগামী বাজেটে ভর্তুকির বদলে প্রণোদনা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
সোমবার সচিবাললে কৃষি বাজেট:কৃষকের বাজেট শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা করেন।
বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আই সুপারিশমূলক এ আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, এবার কৃষিতে ভর্তুকি থাকছে না। প্রণোদনা থাকবে। ভুর্ততি শব্দটিই আর বাজেটে থাকবে না, একে বলা হবে প্রণোদনা। তবে বিগত বাজেটের ভর্তুকির মতো এবারও একই পরিমাণ প্রণোদনা থাকবে।
২০১৮ সালে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার ১০ শতাংশ হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
কৃষকদের হোল্ডিং সার্টিফিকেট দেওয়া হবে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, বর্তমানে ভূমি নিয়ে অনেক জটিলতা রয়েছে। জমির মালিক বের করাও সবচেয়ে বেশি কষ্টকর। প্রত্যেক ব্যক্তিকে হোল্ডিং সনদ দেওয়া হবে। জমির রেজিস্ট্রেশন প্রথাও তুলে দেওয়া হবে।
তিনি বলেন, জমি কেনাবেচার ক্ষেত্রে এই হোল্ডিং সার্টিফিকেট একে অপরকে হস্তান্তর করবে। জমির কোনো দলিলপ্রথা থাকবে না। এতে ৭৫ শতাংশ মামলা কমে যাবে।
এএমএ মুহিত জানান, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) এর আওতায় হোল্ডিং সার্টিফিকেট কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে। এরজন্য বেশি সময় লাগবে না।
গত বছরে এ কাজটি করার পরিকল্পনা ছিল জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, বিগত বছর এটি করতে চেয়িছিলাম কিন্তু পারিনি। আশা করছি এবার পারবো।
তিনি জানান, হোল্ডিং সনদের কাজটি স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ম্যাপিং করার পর গ্রামসভা করা হবে। সেখানে জমির মালিকানার বিষয়ে নিশ্চিত করা হবে। সনদের নিরাপত্তার বিষয়েও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
মালিকদের পাশাপাশি বর্গা চাষীদেরও হোল্ডিং সনদ দেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানান অর্থমন্ত্রী।
অর্থমন্ত্রী বলেন, জমিকে প্রসারিত করার জন্য ভূমি জরিপ করা হয়। এই জরিপ প্রথা আর থাকবে না।
অনুষ্ঠানে কৃষকদের পক্ষে ৫৬ দফা সুপারিশ তুলেন চ্যানেল আইয়ের বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ।

শেয়ার