এড়েন্দায় শিশু সাবিনাকে ধর্ষণের পর হত্যা আদালতে লাভলু গাজীর স্বীকারোক্তি

dhor
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে ৮ বছরের শিশু সাবিনা ইয়াছমিনকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে আটক লাভলু গাজী। রোববার যশোর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আহমেদ তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। আটক লাভলু গাজী সদর উপজেলার এড়েন্দা গ্রামের ইন্তাজ গাজীর ছেলে।
জানাগেছে, ২৩ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাড়ির বারান্দায় বসে পড়া লেখা করছিল সাবিনা ইয়াছমিন (৮)। সে একই গ্রামের বিল্লাল হোসেনের মেয়ে। গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে লেখাপড়া করতো। ঘটনার দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে প্রতিবেশী দাদা লাভলু ও আনোয়ার হোসেন নামে দু’জনে তাকে মিষ্টি খাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নেয়। রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাড়ির পাশে ধান ক্ষেতের মধ্যে তার লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহতের পিতা বিল্লাল হোসেন লাভলু গাজী ও আনোয়ার হোসেনসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের বিরুদ্ধে ২৪ মার্চ কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। শনিবার রাত দেড়টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৬ একটি দল হাশিমপুর গ্রাম থেকে লাভলুকে আটক করে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান লাভলু আদালতে ধর্ষণ ও হত্যার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে।

শেয়ার