‘ভগ্ন শুক্রাণু স্বাস্থ্য আশু মৃত্যু ডেকে আনতে পারে’

sukranu
সমাজের কথা ডেস্ক॥ খারাপ স্বাস্থ্যের শুক্রাণু আয়ু বেশ কয়েকবছর কমিয়ে দিতে পারে, এক গবেষণায় এমন ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।
সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়া ভিত্তিক স্টানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের এক গবেষণায় এমন ইঙ্গিত মিলেছে।
গবেষক দল প্রধান স্টানফোর্ডের ইউরোলজি বিষয়ের অধ্যাপক মিখায়েল আইসেনবার্গ বলেন, “এটি হতে পারে যে সব লোকের শুক্রাণু অস্বাভাবিক তাদের হয়তো শনাক্ত হয়নি এমন স্বাস্থ্যগত সমস্যা আছে, যাতে মৃত্যুর প্রবল সম্ভবনা আছে।”
গবেষণায় দেখা গেছে, তরুণ এবং মধ্যবয়স্ক যে সব মানুষের বীর্যে কম সংখ্যক শুক্রাণু বা চলাচল ক্ষমতায় প্রতিবন্ধকতা আছে, তাদের স্বাভাবিক শুক্রাণু আছে এমন মানুষের তুলনায় পরবর্তী আট বছরের মধ্যে মৃত্যুর সম্ভবনা দ্বিগুণেরও বেশি।
আইসেনবার্গ বলেন, “যাদের ওপর গবেষণাটি চালানো হয়েছে তাদের বয়স ২০ থেকে ৫০’র মধ্যে। এরা সন্তান নেয়ার চেষ্টায় আছেন। এতে বোঝা যায় তারা ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় ব্যস্ত স্বাভাবিক স্বাস্থ্যবান মানুষ।”
যাদের শুক্রাণুতে অন্তত উপরোক্ত দুটি অস্বাভিবকতা বিদ্যমান, তারা স্বাভাবিক শুক্রাণুধারী লোকদের চেয়ে গবেষণা চলাকালীন সময়েই মৃত্যুবরণ করবেন এমন সম্ভবনা ২ দশমিক ৩ গুণ।
শুক্রাণুতে যত বেশি অস্বাভিকতা থাকবে, তাড়াতাড়ি মৃত্যুর সম্ভবনাও তত বেশি হবে।
প্রায় ১২শ’ লোকের তথ্য বিশ্লেষণ করে গবেষণাটি করা হয়। তবে এতে অংশগ্রহণকারীরা ধূমপায়ী কিনা এসব বিবেচনা করা হয়নি। তবে ধূমপানের কারণে মৃত্যুর সম্ভবনা বৃদ্ধির পাশাপাশি এটি উর্বরতা হ্রাসেও ভূমিকা রাখে বলে আগের গবেষণাগুলোর ফলাফলে উল্লেখ করা হয়েছে।

শেয়ার