মাগুরা ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলাকারীরা বেপরোয়া ॥ স্বজনরা নিরাপত্তাহীনতায়, এলাকাবাসী আতঙ্কিত

oporadh
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ঝিকরগাছা উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনের উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। চেয়রাম্যান হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় কাতরালেও সন্ত্রাসীরা এলাকায় অবস্থান করছে এবং তার স্বজনদের হুমকি ধামকি দিচ্ছে। হামলার সাথে জড়িত থাকা দুজন ছাড়া অন্য সন্ত্রাসীদের পুলিশ গ্রেফতার করতে না পারায় আস্ফালন দেখাচ্ছে বলে এলাকাবাসী মনে করছেন।
জানা যায়, ৮ মে ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদ থেকে ফেরার পথে ফুলবাড়ি ঘোড়াদাহ গ্রামের ব্রিজের কাছে পৌঁছালে ফুলবাড়ি গ্রামের মৃত জামির সরদারের ছেলে আমির হোসেন, মাগুরা গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে মফিদুল ইসলাম, দৌলতপুর ফুলবাড়ির ফজলুর রহমান, নওশের আলীর ছেলে জাহিদুল, ডহর মাগুরার সিদ্দিক মোড়লের ছেলে শিমুল হোসেন, ইব্রাহিম বিশ্বাসের ছেলে ইউনুস, রফিকুল ইসলাম ও টোকনসহ অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তার উপর হামলা চালায়ে রক্তাক্ত জখম করে। মারাত্মক অবস্থায় প্রথমে তাকে যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে শুক্রবার যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ১০ মে ঝিকরগাছা থানায় সন্ত্রাসীদের নামে একটি মামলা করা হয়। কিন্তু ঘটনার ৮দিন পরেও সব সন্ত্রাসীকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। মামলার এক ও দুই নম্বর আসামিকে গ্রেফতার করা গেলেও অন্য আসামিরা রয়েছেন ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এদিকে, একজন জনপ্রতিনিধিকে হামলা করেও সন্ত্রাসীরা গ্রেফতার না হওয়ায় এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। শুধু তাই নয়, হামলাকারীরা চেয়ারম্যানের স্বজন ও অনুসারীদের নানাভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছে। তার পক্ষে কেউ কথা বললে তাদেরকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেয়া হবে বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এতে চেয়ারম্যানের স্বজনরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। অন্যদিকে, চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনের বিরুদ্ধেও হামরাকারীরা নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এবিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

শেয়ার