গাড়ি চালানোয় স্ত্রীকে ঘরছাড়া!

soudi
সমাজের কথা ডেস্ক॥ পারিবারিক গাড়িটি চালিয়ে স্বামীকে অবাক করতে গিয়ে (সারপ্রাইজ) উল্টো তার কাছ থেকে চিরদিনের জন্য প্রত্যাখ্যাত হতে বসেছেন এক সৌদি গৃহবধূ।
ক্ষুব্ধ স্বামীর অভিযোগ, গাড়ির ড্রাইভিং সিটে বসে তার স্ত্রী শুধু আইনই ভঙ্গ করেননি বরং সৌদি আরবের সামাজিক প্রথা ও ঐতিহ্যও নষ্ট করেছেন।
মধ্যপ্রাচ্যের গণমাধ্যম আল আরাবিয়ার খবরে বলা হয়, ওই নারী একটি রাস্তায় গাড়ি চালান অবস্থায় এর ছবি ধারণ করেন। স্বামীকে ‘সারপ্রাইজ’ দেয়ার আশায় ম্যাসেজিং অ্যাপ্লিকেশন ‘হোয়াসআপ’ এর সাহায্য তাৎক্ষণিকভাবে ছবিটি পাঠিয়ে দেন তার স্বামীর কাছে।
স্বামীর সঙ্গে নিছক ঠাট্টাচ্ছলে এমনটি করলেও তা ওই সৌদি নারীর জীবনে বড় বিপর্যয় ডেকে এনেছে। কারণ স্ত্রীর ওই ছবি দেখে কথিত ওই সৌদি পুরুষ খুশি হওয়া তো দূরের কথা উল্টো তার স্ত্রীকে ঘরছাড়া করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
লোকটি তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে এখন একটি ‘ডিভোর্স পেপার’ পাঠিয়েছেন। আর তার স্ত্রী সামাজিক ও আইনগত নিষেধাজ্ঞা ভেঙেছে বলে আদালতের কাছে নালিশ করেছে।
সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালনার ওপর রয়েছে অলিখিত নিষেধাজ্ঞা। দেশটিতে নারীদেরকে কোনো ড্রাইভিং লাইসেন্স দেয়া হয় না। ইতোমধ্যেই এ নিয়ে বিশ্বজুড়ে সৌদি আরবের ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে।
সৌদি নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার আন্দোলনে সুর মিলিয়েছেন খোদ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।
আল আরাবিয়ার খবরে আরো বলা হয়, গাড়ি চালানোর অপরাধে স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদের খবরে সৌদি আরবের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া হচ্ছে। সামাজিক ঐতিহ্যের পক্ষে অবস্থান নেয়ার জন্য অনেকে সৌদি আরবের ওই পুরুষের পক্ষে দাড়ালেও অনেকে পরিবারে বিচ্ছেদের জন্য তার সমালোচনা করছেন।

শেয়ার