বসুন্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যানসহ ২৩ জনের নামে নাশকতার মামলা ॥ যুবদল নেতা আটক॥ ৪টি হাত বোমা উদ্ধার

boma uddhar
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরের বসুন্দিয়ার সিঙ্গিয়া কলেজ মাঠ থেকে ৪টি বোমা উদ্ধারসহ যুবদলের নেতা আল আমীনকে আটক করেছে পুলিশ। এক ঘটনায় বসুন্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আবু বক্কার খানসহ ২৩ জনকে আসামি করা হয়েছে। আল আমিন গাইদগাছি গ্রামের ক্বারী আব্দুল মতলেব মোল্যার ছেলে।
বসুন্দিয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মোকসেদুর রহমান জানান, সোমবার রাত ১১ টা ৪৫ মিনিটের দিকে তারা টহল ডিউটিতে যান। এসময় গোপনে সংবাদ পেয়ে সিঙ্গিয়া আদর্শ ডিগ্রি কলেজের শহীদ মিনারের পাশে যান। সেখানে ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আবু বক্কার খানসহ ৪০/৫০ লোক নাশকতার উদ্দেশ্যে অস্ত্রশস্ত্র ও বোমা নিয়ে অবস্থান করছিল। তারা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দৌড়ে পালানোর সময় আল আমীনকে আটক করা হয়। এ সময় আল আমীনকে জিজ্ঞাসাবাদকালে সে জানায় সরকার বিরোধী আন্দোলনে নাশকতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে সেখানে কর্মপরিকল্পনা করা হচ্ছিল। এ ছাড়াও তার দেখানো মতে শহীদ মিনারের পিছন দিক থেকে ৪ টি হাত বোমা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ২৩ জনের নামসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩০/৩৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
আল আমিনমহ অপর আসামিরা হলো,সদর উপজেলার গাইদগাছি গ্রামের মৃত নাদের মাস্টারের ছেলে কবির হোসেন, একই গ্রামের ডাক্তার আব্দুল কুদ্দুস, মশিয়ার রহমান, জগন্নাথপুর গ্রামের আক্কাস মোল্লার ছেলে ইলিয়াস হোসেন, বানিয়ারগাতি গ্রামের মাওলানা তবিবুর রহমান, নুরু মোল্লার ছেলে শফিয়ার রহমান, জঙ্গলবাধাল গ্রামের আবু হোসেনের ছেলে হাদিউজ্জামান, একই গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস, জয়ন্তা গ্রামের মোজাহার, ঘুনি গ্রামের সেলিম মোল্লা, বসুন্দিয়া এলাকার কুটি মিয়ার ছেলে মাওলানা হারুন-অর-রশিদ, বসুন্দিয়া গ্রামের মজিদ খানের ছেলে ইয়াছিন খান ও মাসুম খান, একই এলাকার রবি, মোকছেদ খানের ছেলে মোস্ত খান, মোস্তাফিজুর রহমান, ইমান আলীর ছেলে ইউসুফ আলী, মজে মোল্লার ছেলে এনামুল হক মোল্লা, কেফায়েতনগর গ্রামের ওলিয়ার রহমানের ছেলে হাবিবুর রহমান, জগন্নাথপুর গ্রামের জাকের মোল্লার ছেলে জহির মাওলানা ও হোসেন খানের ছেলে রকিব খান।

শেয়ার