বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কে নতুন মাত্রা দিতে চায় চীন

Bangladesh china
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কে নতুন মাত্রা দিতে চায় চীন। চীনের উচ্চ পর্যায়ের ১৫ সদস্যের একটি সামরিক প্রতিনিধিদল সোমবার বিকেলে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাত করে একথা জানিয়েছে।

প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দেশটির বিমানবাহিনীর প্রধান জু কুইলিং। তিনি বলেন, আগামীতে এশিয়া হবে বিশ্বের কেন্দ্রীয় মঞ্চ। এক্ষেত্রে বাংলাদেশও একটি গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে থাকবে।

তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চীনের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান তিনি। শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বর্তমান সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে সফল হবে, এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন প্রতিনিধি দলের প্রধান।

পারস্পরিক বিশ্বাস, আস্থা ও সহযোগিতার সম্পর্ককে গভীরতর করা, দুদেশের সশস্র বাহিনীর সম্পর্ককে আরো জোড়দার করা এই সফরের উদ্দেশ্য বলেও জানান তারা।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে আরো আধুনিক ও শক্তিশালী করতে চীনের সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে উল্লেখ করে প্রতিনিধি দলটি বাংলদেশের এক-চীন নীতির প্রতি সমর্থনের বিশেষ প্রশংসা করেন।

এসময় বাংলাদেশের ঐতিহাসিক পর্যটক অতীশ দীপঙ্করের চীন সফরের কথা স্মরণ করে প্রতিনিধি দলটি। তারা বলেন, দুদেশের সম্পর্কের শিকড় আমাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের মধ্যে নিহিত রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসময় দুদেশের ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা বলতে গিয়ে বঙ্গবন্ধুর চীন সফর ও অসামপ্ত আত্মজীবনীতে চীন সফরের প্রসঙ্গ স্থান পাওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করেন।

দুদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বাংলাদেশের অবকাঠামোর উন্নয়নে চীনের সহায়তার জন্য কৃতজ্ঞতা জানান।

চীনের কুমিং থেকে মায়ানমার হয়ে বাংলাদেশ পর্যন্ত সড়কপথ দ্রুত সম্পন্ন করার উপর জোড় দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, এই সড়কপথ সম্পন্ন হলে বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে অর্থনৈতিক ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক আরো গতিশীল হবে।

বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও সমৃদ্ধশালী দেশ হিসাবে গড়ে তুলতে চীনের সহযোগিতা কামনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

এই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আব্দুস সোবহান সিকদার, সামরিক সচিব মিয়া মোহাম্মদ জয়নাল আবেদিন, লে. জে. আবু বেলাল মো: সফিউল হক, চীনের রাষ্ট্রদূত লি জুন ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিল।

শেয়ার