পেট্রোল বোমায় নিহতদের বাড়ি গিয়ে ক্ষমা চান

hassan
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ও আহতদের বাড়ি গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পবিবারগুলোর সদস্যদের কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর গুলিস্থান বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ‘সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা ফ্রন্ট’ কার্যালয়ে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধী জামায়াতের জঙ্গি ও সন্ত্রাসী পরিবেষ্টিত হয়ে নারায়ণগঞ্জে গিয়ে মায়াকান্না না করে গত বছর বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীদের দিয়ে আপনার নেতৃত্বে যে সব লোককে পেট্রোল বোমা ও আগুনে পুড়িয়ে মারা হয়েছে, তাদের পরিবারের কাছে গিয়ে সমবেদনা জানান। পরিবারকে সান্ত¡না দিয়ে তাদের কাছে ক্ষমা চান।

নারায়ণগঞ্জবাসীকে ‘সাবাধান’ করে দিয়ে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার হাত মানুষের রক্তে রঞ্জিত ও পেট্রোল বোমা রয়েছে। আপনারা সাবধান থাকবেন খালেদা জিয়া নারায়ণগঞ্জ থেকে আসার পর আবার নতুন করে যাতে মানুষ গুম ও খুন না হয়।

নারায়ণগঞ্জের ঘটনা ও র‌্যাব প্রসঙ্গে হাছান মাহমুদ বলেন, ২০০৮ সালে নির্বাচনে আমাদের সরকারের অন্যতম অঙ্গীকার ছিল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্নের পাশাপাশি ন্যায়ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা করা। এই অঙ্গিকারের বাস্তবরূপ আমরা দিতে পেরেছি। নারায়ণগঞ্জের ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান এবং প্রকৃত অপরাধীকে চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত কঠোরভাবে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে শুধুমাত্র অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ার কারণে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার আগেই র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

র‌্যাবকে বিলুপ্তির জন্য খালেদা জিয়ার দাবিকে হাস্যকর ও ভিত্তিহীন এবং দূরভিসন্ধিমূলক উল্লেখ করে তিনি বলেন, মাথা ব্যাথা থাকলে যে ডাক্তার মাথা কেটে ফেলার পরামর্শ দেয় তার মানসিকসুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন আছে। র‌্যাবকে বিএনপি সরকার গঠন করা হয়েছিল ২০০৪ সালে।

শেয়ার