জঙ্গি অর্থায়ন সব ইসলামী ব্যাংকের ফাঁক-ফোকর খুঁজে ব্যবস্থা

ministry
সমাজের কথা ডেস্ক॥ইসলামী ব্যাংকসহ জঙ্গিবাদে অর্থলগ্নিকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। জামায়াত নিয়ন্ত্রিত ইসলামী ব্যাংক ও অন্যান্য ইসলামী ব্যাংকগুলোর অর্থলগ্নির ফাঁক-ফোকর খুঁজতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সোমবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ ও প্রতিকার সংক্রান্ত বিশেষ বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
বৈঠকে পুলিশের আইজি হাসান মাহমুদ খন্দকার, আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ (রাজনৈতিক) উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া গোয়েন্দা সংস্থা, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), অর্থ মন্ত্রণালয় ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, জামায়াত নিয়ন্ত্রিত ইসলামী ব্যাংক ছাড়াও অন্যান্য ইসলামী ব্যাংকে লভ্যাংশ না নিয়ে অর্থ জমা রাখা হচ্ছে। পরবর্তীতে এই অর্থ সামাজিক কর্মকা-ে ব্যয় দেখানোর নামে জঙ্গিবাদে ব্যয় করা হচ্ছে। জঙ্গিবাদে অর্থলগ্নিকারী এসব এসব ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে বৈঠকে।

বৈঠকে জঙ্গিবাদে অর্থ লগ্নিতে জামায়াত নিয়ন্ত্রিত ইসলামী ব্যাংকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রাথমিক তালিকা তুলে ধরে আলোচনা করা হয়। ব্যাংক ছাড়াও প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে জামায়াত নিয়ন্ত্রিত বিভিন্ন সংগঠন। এসব প্রতিষ্ঠানের তালিকা ধরে অর্থলগ্নির ফাঁক-ফোকর চিহ্নিত করতে নির্দেশনাও দেওয়া হয় বৈঠকে।

বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কামাল বলেন, আমাদের দেশে মাঝে মধ্যে জঙ্গিবাদের আবির্ভাব ঘটে। জঙ্গিবাদে অর্থায়ন কী ভাবে হয় তা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা করেছি। কারা অর্থলগ্নি করে, কী ভাবে করে তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে এ ব্যাপারে প্রাথমিক ধারণা নিয়েছি। অর্থলগ্নিকারী ব্যাংকগুলো কী ভাবে ফাঁক-ফোকর দিয়ে অর্থ লগ্নি করে তা চিহ্নিত করে পরবর্তী লাইন অব অ্যাকশনে যাবো।

বৈঠক শেষে একজন অতিরিক্ত সচিব জানান, অর্থলগ্নিকারী ব্যাংকগুলো ঘোষণা দিয়ে লভ্যাংশ নেয়না। এসব ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে প্রতিবেদনও দেয় না। তাদের তথ্য সংগ্রহ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেওয়া হবে।

শেয়ার