জঙ্গিদের রক্ষায় র‌্যাবের বিলুপ্তি চান খালেদা: আওয়ামী লীগ

Hasan Mahmud

সমাজের কথা ডেস্ক॥ র‌্যাবকে বিলুপ্ত করতে খালেদা জিয়ার দাবির পেছনে ‘দুরভিসন্ধি’ রয়েছে বলে মনে করছে আওয়ামী লীগ।
বিএনপি চেয়ারপারসনের দাবির প্রতিক্রিয়ায় ক্ষমতাসীন দলের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, “বাংলাদেশে যাতে জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে, সেজন্য তিনি (খালেদা) র‌্যাব বিলুপ্তির কথা বলেন। কারণ তারা জঙ্গিবাদের লালন করেন।”
নারায়ণগঞ্জের সাতখুনের প্রেক্ষাপটে র‌্যাবের বিরুদ্ধে হত্যা-গুম-অপহরণে জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে রোববার এই বাহিনী বিলুপ্তির দাবি তোলেন খালেদা।
সোমবার কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমির এক আলোচনা সভায় বক্তব্যে তার প্রতিক্রিয়া জানান হাছান মাহমুদ।
তিনি আরো বলেন, “নৈতিক স্খলনের জন্য পুরো বাহিনীকে যারা বিলুপ্তির পরামর্শ দেন, তাদের মানসিক সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয়। তার (খালেদার) মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক নেই।”
২০০৪ সালে বিএনপির আমলে গঠিত র‌্যাব নিয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলো সমালোচনামুখর হলেও যখন যারাই সরকারে থাকে, তারাই এই বাহিনী রাখার পক্ষে অবস্থান নিচ্ছে।
র‌্যাব বিলুপ্ত না করার পক্ষে সাবেক মন্ত্রী হাছান মাহমুদ যুক্তি দেখিয়ে বলেন, “বাংলাদেশের অনেকগুলো হত্যাকাণ্ড সেনাবাহিনীর মাধ্যমে হয়েছে। এমনকি জিয়াউর রহমানের হত্যাকাণ্ডও।
“পুলিশ বাহিনীর বিরুদ্ধেও হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ আছে। তাই বলে কি বেগম জিয়া পুলিশও বিলুপ্তি কথা বলবেন?”
নারায়ণগঞ্জের গুম-হত্যাকাণ্ডে বিএনপি জড়িত বলে অভিযোগ করে ওই জেলায় খালেদার সফরের কর্মসূচির সমালোচনাও করেন আওয়ামী লীগ নেতা।
“বেগম জিয়া আগামীকাল নাকি নারায়ণগঞ্জ যাবেন। নারায়ণগঞ্জের মানুষকে সতর্ক থাকতে বলব। যিনি নারায়ণগঞ্জ যাচ্ছেন, তার হাতে রক্তের দাগ। তিনি পেট্রল বোমা মেরে শত শত মানুষ মেরেছেন।”
নারায়ণগঞ্জে নিহত সাতজনের মধ্যে আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার ও তার গাড়িচালক মো. ইব্রাহিম ছাড়া অন্য সবাই আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী।

শেয়ার