বলিউডের নতুন ‘কুইন

kangna ranaut
সমাজের কথা ডেস্ক॥ আট বছর আগে ‘গ্যাংস্টার’ সিনেমার মাধ্যমে ১৯ বছর বয়সী কাঙ্গানা রানাউত যখন পা রাখেন হিন্দি সিনেমার জগতে, অনেকেই বলেছিলেন ‘আগামী দিনের তারকা’ তিনি। অনেক উত্থান-পতন পেরিয়ে আজ তিনি দর্শকদের হৃদয়ের রানি। ‘কৃশ থ্রি’, ‘কুইন’ এবং ‘রিভলভার রানি’র পর বলা হচ্ছে ‘খান’দের কাতারেই এখন যোগ দিয়েছেন কাঙ্গানা।

দিল্লির সাধারণ এক পাঞ্জাবি পরিবারের মেয়ে রানি, যে একা একা ঘরের চৌকাঠও মাড়ায়নি। বিয়ে ভেঙে যাওয়ার পর সেই হানিমুন করতে একা বেরিয়ে পড়ল প্যারিসের উদ্দেশে! পুরুষশাসিত ভারতীয় সমাজের প্রেক্ষাপটে এমন বিষয়বস্তু নিয়ে একটি রোমান্টিক কমেডি তৈরির পরিকল্পনা যখন করছিলেন ভিকাস বেহেল, তখন মূল চরিত্রটির জন্য নাকি কাঙ্গানা ছাড়া আর কারও কথা মাথায় আসেনি তার। এক সময় ‘ড্যামসেল ইন ডিসট্রেস’ হিসেবে টাইপকাস্ট কাঙ্গানার অতি সাধারণ অথচ বলিষ্ঠ মেয়ে ‘রানি’র চরিত্রে সাবলীল অভিনয় সমালোচকদেরও স্তব্ধ করে দিয়েছে।

‘কুইন’ কঙ্গনার দাপট এখন এতটাই যে, নারীপ্রধান এই সিনেমা এখন রিমেক হচ্ছে তামিল, তেলেগু এমনকী চীনা ভাষাতেও! ভারতজুড়ে দারুণ ব্যবসার পর আন্তর্জাতিক বাজারও মাত করেছে সিনেমাটি। সাম্প্রতিক সময়ে নারীকেন্দ্রিক সিনেমায় এমন সাফল্য দেখাতে পেরেছিলেন কেবল একজনই। ‘দ্য ডার্টি পিকচার’ আর ‘কাহানি’খ্যাত অভিনেত্রী বিদ্যা বালানের সঙ্গেই এখন তুলনা হচ্ছে তার।

হিমাচল প্রেদেশের ছোট্ট এক শহর থেকে নিজের ভবিষ্যত নিজেই তৈরির লক্ষ্য নিয়ে ১৬ বছর বয়সেই দিল্লিতে পাড়ি জমিয়েছিলেন কঙ্গনা। মডেলিং করতে করতেই একসময় হিন্দি সিনেমার কর্তাদের নজরে পড়ে যান। ছোটবেলার স্বপ্ন যখন সত্যি হওয়ার সুযোগ এল, কোনো দ্বিধা ছাড়াই পা রাখলেন রূপালি পর্দায়। ২১ বছর বয়সেই জিতে নেন ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।

তবে প্রথম সিনেমা ‘গ্যাংস্টার’-এর পর থেকেই বিষাদময় চরিত্রের জন্যই বারবার নির্বাচিত হন কাঙ্গানা। ‘ও লামহে’, ‘লাইফ ইন এ মেট্রো’, ‘ফ্যাশন’- সবগুলো সিনেমাতেই কাঙ্গনার চরিত্রের ধরন ছিল অনেকটা একই রকম।

নিজের এই ইমেইজ ভাঙতেই বুঝি ২০০৯ সাল থেকে গ্ল্যামারাস কিন্তু লঘু চরিত্রে অভিনয় করতে শুরু করেন তিনি। তবে পরের দুই বছরে এ ধরনের সিনেমায় অভিনয় করেও খুব একটা সাফল্য পাননি তিনি।

তারপর ২০১১ সালের ‘তানু ওয়েডস মানু’ কাঙ্গানাকে বক্স অফিস সাফল্যই এনে দেয়নি, সাহায্য করেছে টাইপকাস্ট ভেঙে নিজের বহুমুখী অভিনয় প্রতিভার পরিচয় দিতে। যদিও এরপর আবার বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়তে শুরু করে তার সিনেমাগুলো।

হৃত্বিক রোশানের সুপারহিরো সিরিজের সাম্প্রতিক সিনেমা ‘কৃশ থ্রি’ দিয়ে সাফল্যের ধারায় প্রত্যাবর্তন। সিনেমার মূল নায়িকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া হলেও, খলনায়িকার চরিত্রে অভিনয় করে লাইমলাইট নিজের দিকেই টেনে নেন কঙ্গনা।

চলতি বছর এখন পর্যন্ত মুক্তি পেয়েছে কাঙ্গানা অভিনীত তিনটি সিনেমা। প্রথম সিনেমা ‘রাজ্জো’ ফ্লপ করলেও সমাদৃত হয়েছে তার অভিনয়। তৃতীয় সিনেমা ‘রিভলভার রানি’ মুক্তি পেয়েছে কদিন আগে। সিনেমায় গ্যাংস্টারের চরিত্রকে কাঙ্গানার অভিনয়কে অনেকেই তুলনা করেছেন `কিল বিল’ সিনেমায় উমা থারম্যান এবং ‘ব্যান্ডিট কুইন’ সিনেমায় সিমা বিশ্বাসের সঙ্গে। আর দ্বিতীয় সিনেমা ‘কুইন’-এর ইতিহাস সৃষ্টির কথা তো এখন জানা সবারই।

কঙ্গনার এই সাফল্যের ধারা বজায় থাকছে সামনের বছরগুলোতেও। তার হাতে থাকা সিনেমার তালিকার দিকে তাকালেই তা বোঝা যায় পরিষ্কারভাবেই। তিনি এখন কাজ করছেন কারান জোহারের প্রযোজিত সিনেমা ‘উংলি’তে। সিনেমায় তার সঙ্গে থাকছেন এমরান হাশমি, সঞ্জয় দত্ত এবং রানদিপ হুড়া। ‘তানু ওয়েডস মানু’-এর সিকুয়েলেও দেখা যাবে তাকে; এবার অভিনয় করবেন দ্বৈত ভূমিকায়। সুজয় ঘোষের ‘দুর্গা রানি সিং’ সিনেমায় অভিনয় করবেন প্রতিবন্ধী এক শিশুর মায়ের ভূমিকায়। আর ইরফান খানের বিপরীতে সম্প্রতি তিনি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সাই কাবিরের ‘ডিভাইন লাভার্স’ সিনেমায়। মূলধারা, আর বিকল্প ধারা– দুই ধারার সিনেমাতেই কঙ্গনার দাপট তাই অক্ষুণ্ন থাকবে বলেই মনে হচ্ছে।

শেয়ার