ইরান ও ছয় বিশ্বশক্তির ‘কার্যকর’ পরমাণু আলোচনা

iran]

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ইরান ও ছয় বিশ্বশক্তি তেহরানের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে আরো “কার্যকর” আলোচনা করেছে বলে ঘোষণা করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।
তবে ইরানের ভবিষ্যৎ পরমাণু সামর্থ্য নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে এখনও গভীর মতভেদ রয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন এক পশ্চিমা কূটনীতিক।
৬-৭ মে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে দু’দিনব্যাপী ওই বৈঠক শেষে বুধবার ওই ঘোষণা দেন ইইউ’র মুখপাত্র।
এই আলোচনায় এক পক্ষে ইরানি প্রতিনিধিরা ও অন্যপক্ষে ছয় বিশ্বশক্তি যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, জার্মানি, ব্রিটেন, চীন ও রাশিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
এই বৈঠকে দশক ধরে বিতর্ক চলে আসা তেহরানের পরমাণু উচ্চাকাঙ্ক্ষার ব্যাপারে ইরান ঘোষিত ২০ জুলাইয়ের মধ্যে একটি দীর্ঘ মেয়াদি চুক্তি সম্পন্ন করার বিষয়ে আলোচনা হয়।
বৈঠকের পর ইইউ মুখপাত্র বলেন, “নিউইয়র্কে ছয় বিশ্বশক্তি ও ইরানি কারিগরি বিশেষজ্ঞদের মধ্যে একটি কার্যকরী আলোচনা হয়েছে।”
তিনি আরো বলেন, “ইস্যুটির বিষয়ে পারস্পরিক বোঝাপড়া আরো গভীর করার লক্ষ্যে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।
আগামী সপ্তাহে ভিয়েনায় অনুষ্ঠিতব্য পরবর্তী দফার বৈঠকে (জ্যেষ্ঠ পর্যায়ে) ব্যাপকভিত্তিক সমঝোতার প্রস্তুতিতেও এই আলোচনা ভূমিকা রাখবে।”
ইরানি প্রতিনিধি দলের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, কিছুক্ষণের মধ্যেই নিউইয়র্ক বৈঠক সম্পর্কে ইরানি গণমাধ্যমগুলোতেও একই ধরনের একটি বিবৃতি দেবেন তারা।
ওই বিবৃতি আগামী সপ্তাহে অস্ট্রিয়ার রাজধানীতে আয়োজিত বৈঠকে অংশগ্রহণের পূর্ব ঘোষণা হিসেবে বিবেচিত হবে।
পরমাণু প্রকল্পের মাধ্যমে ইরান পারমানবিক অস্ত্র সক্ষমতা গড়ে তুলতে চাইছে বলে পশ্চিমা শক্তিগুলো সন্দেহ করছে। এই সন্দেহে প্রকল্পে বাধা দিতে ইরানের ওপর কঠোর অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক অবরোধ আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্রর ও ইইউ।
বিপরীতে নিজেদের এই কর্মসূচিকে চিকিৎসা ও জ্বালানি উৎপাদনের মতো বেসামরিক উদ্দেশ্যে নিয়োজিত এবং এই উদ্দেশ্যে পরমাণু প্রকল্প এগিয়ে নেয়ার অধিকার তাদের রয়েছে বলে দাবি করে আসছে ইরান।

শেয়ার