শিষ্যদের জার্গেনসেনের শুভ কামনা

COACH
সমাজের কথা ডেস্ক॥ শিষ্যদের খুব ‘মিস’ করবেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক কোচ শেন জার্গেনসেন। তার দৃঢ় বিশ্বাস, মুশফিকুর রহিমের কঠোর পরিশ্রম অব্যাহত থাকলে পাঁচ বছরে আকর্ষণীয় দলে পরিণত হবে বাংলাদেশ।
বুধবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের জার্গেনসেন বলেন, “বিদায় জানাতে এসেছিলাম। অনেককে বিদায় জানানোর ছিল। সম্ভবত মাঠে এটাই শেষ আসা।”
বাংলাদেশের দলটি এখনো তরুণ। জার্গেনসেনের বিশ্বাস, অভিজ্ঞতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দলটি আরো সাফল্য পাবে। তিনি বলেন, “আগামী ৫ বছর ওরা আকর্ষণীয় একটি দলে পরিণত হবে। টেস্টে ক্রিকেটে বেশি ‘ড্র’ করা প্রয়োজন। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ এখনই ভালো দল। আর টি-টোয়েন্টিতে এখনো কিছু কাজ করতে হবে।”
বোলিং কোচ হিসেবে বাংলাদেশে এসেছিলেন জার্গেনসেন। পরে তাকেই প্রধান কোচের দায়িত্ব দিয়েছিল বাংলাদেশ।
“বোলিং কোচ হিসেবে এসে শুরু থেকেই ছেলেদের সহায়তা পেয়েছি। ওরা আমাকে ওদেরকে সহায়তা করার সুযোগ দিয়েছে। ওদের ভবিষ্যত উজ্জ্বল। আমি ওদের বলব, কঠোর পরিশ্রম করে যাও। আর যা করছো তা অব্যহত রাখো।”
প্রিয় শিষ্যদের মতোই বাংলাদেশের ক্রিকেট পাগল সমর্থকদেরও ‘মিস’ করবেন জানিয়ে অস্ট্রেলিয়ার এই কোচ বলেন, “প্রতিটি খেলায় সমর্থন দিতে মাঠে প্রচুর ভক্ত আসত। বেশির ভাগ সময় খেলোয়াড়দের উৎসাহ দিলেও কখনো কখনো আমার নামে ‘চিয়ার্স’ করেছে।”
বিদায় বেলায়ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ব্যর্থতায় শিষ্যদের দুষলেন না জার্গেনসেন। তিনি বলেন, “টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সবাই নিজের সেরা চেষ্টাটাই করেছে। সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাশরাফি, রাজ্জাকের মতো সিনিয়র ক্রিকেটাররা সব সময়ই দলের জন্য অবদান রাখার চেষ্টা করে। তরুণদেরও চেষ্টার কমতি ছিল না।”
অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের কথা আলাদা করেই বলেছেন জার্গেনসেন। এই দুইজনের যুগলবন্দিতে অনেক সাফল্য পেয়েছে বাংলাদেশ।
“কোচ হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম জয় অসাধারণ একটি ব্যাপার। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে আমরা জিতেছিলাম। শ্রীলঙ্কায় ১-১ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ ড্র করা সম্ভবত অন্যতম সেরা অর্জন। দ্বিতীয় ‘বাংলাওয়াশ’কেও পিছিয়ে রাখা যায় না।”
বাংলাদেশে কাজ করাটা ভীষণ উপভোগ করেছেন জার্গেনসেন। তিন বছর কোন দিক দিয়ে পেরিয়ে গেছে টেরই পাননি। শেষটা ভালো না হলেও এখানে তার অনেক সুখস্মৃতি। তাই ভবিষ্যতে কখনো ফিরে আসার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেননি অস্ট্রেলিয়ার এই কোচ।

শেয়ার