চার ম্যাচের জয়খরা কাটাল কলকাতা

kolkata
সমাজের কথা ডেস্ক॥
রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে আইপিএলের সপ্তম আসরের সর্বশেষ জয়টি পেয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। এরপর খেলেছে চারটি ম্যাচ, কিন্তু জয় যেন হাতের মুঠোয় আসতেই চাইছিল না। অবশেষে জয়খরা কাটাল তারা। দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের কাছে আগের ম্যাচে হারের শোধও তুলল তারা। বুধবার কেভিন পিটারসেনের দলকে ৮ উইকেটে হারাল শাহরুখ খানের ফ্র্যাঞ্চাইজি।
ঘরের মাঠে টানা তৃতীয় হার থেকে বাঁচার মতোই সংগ্রহ করেছিল দিল্লি। টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে সাকিব আল হাসানের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের মুখোমুখি হয় তারা। ব্যক্তিগতভাবে কোনো ব্যাটসম্যান জ্বলে উঠতে পারেননি। জেপি ডুমিনি ২৮ বলে কোনো বাউন্ডারি না থাকলেও তিনটি ওভার বাউন্ডারিতে ৪০ রানে টিকে ছিলেন। দিল্লির পক্ষে এটাই সর্বোচ্চ ব্যাটিং পারফরমেন্স।
এছাড়া দিনেশ কার্তিক ২২ বলে চারটি চার ও একটি ছয়ে ৩৬ রানের দ্বিতীয় সেরা ইনিংস খেলেন। শেষদিকে কেদার যাদব ১৫ বলে তিন চার ও এক ছয়ে ২৬ রানে মোটামুটি অবদান রাখেন। ওপেনার মুরালি বিজয়ের ব্যাটে আসে ২৪ রান।
সাকিব চার ওভারে মাত্র ১৩ রান দিয়ে একটি উইকেট দেন। এছাড়া জ্যাক ক্যালিস, উমেশ যাদব ও সুনীল নারাইন একটি করে উইকেট নেন।
লক্ষ্যে নেমে এদিনও রবিন উথাপ্পা ও গৌতম গম্ভীরের উদ্বোধনী জুটি উড়ন্ত সূচনা করে। ১১ ওভার পাঁচ বলে ১০৬ রানের এই জুটি ভাঙে উথাপ্পা ব্যক্তিগত ৪৭ রানে আউট হলে। ৩৪ বলে পাঁচ চার ও এক ছয়ে সাজানো এই ওপেনারের ইনিংস।
জয় থেকে নয় রান দূরে থাকতে ইনিংস সেরা ব্যাটিং করে আউট হন ম্যাচসেরা গম্ভীর। ওয়েন পারনেলের দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে ৫৬ বলে পাঁচ চার ও দুই ছয়ে ৬৯ রান করেন কলকাতা অধিনায়ক। মনীষ পান্ডে ২৩ ও ক্যালিস ১০ রানে অপরাজিত থেকে জয়ের বাকি আনুষ্ঠানিকতা সারেন।
৮ ম্যাচে তিন জয় নিয়ে চারে উঠে এসেছে কলকাতা। আর চার পয়েন্ট নিয়ে একেবারে তলানিতে দিল্লি।

শেয়ার