যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পুলিশের তল্লাশি ॥ রড চাকু হাতুড়ি উদ্ধার, ২ কিশোর নিখোঁজ

jessore kishor unnoion kendro
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে বন্দিদের নির্যাতন, নি¤œমানের খাবার পরিবেশন, পুলিশের ঘুষ বাণিজ্যসহ নানা অভিযোগ এবং সর্বশেষ সহিংসতার ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। সোমবার সকালে কমিটির সদস্যরা বিপুল সংখ্যাক পুলিশ নিয়ে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের মধ্যে ব্যাপক তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে। এ সময় চাকু, লাঠি, রড, ভাঙ্গা তালা উদ্ধার করা হয়। রোববারের সংঘর্ষের পর কেন্দ্র থেকে নাজমুল ও নাইমুল নামে দু’কিশোর পালিয়ে গেছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে থেকে কোতোয়ালি থানায় জিডি করা হয়েছে।
কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের শিক্ষক বাবুল হোসেন বলেছেন, রোববার সকালে অ্যাসেম্বিলির পর বন্দি কিশোররা অনিয়ম, দুর্নীতি ও তাদের উপর নির্যাতনের ব্যাপারে কেন্দ্রের সহকারী পরিচালকের কাছে অভিযোগ করে। এসময় তারা পুলিশের বিরুদ্ধেও ঘুষ দুর্নীতির অভিযোগ করে। সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন বিষয়টি দেখার আশ্বাস দিলে তারা ব্যারাকে ফিরে যায়। এ সময় দায়িত্বে থাকা পুলিশ তাদেরকে মারপিটের ভয়ভীতি দেখালে সংঘর্ষ বাধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কিশোরদের উপর এলোপাতাড়ি গুলি ছোঁড়ে পুলিশ।
সহকারী তত্ত্বাবধায়ক আবুল বাশার শেখ জানান, কেন্দ্রে মোট ১৩৯ জন কিশোর রয়েছে। এর মধ্যে রোববারের ঘটনার পর থেকে দু’জন নিখোঁজ রয়েছে। এদের মধ্যে ৭/৮জন কিশোরের উচ্ছৃঙ্খলতার কারণেই এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
এ ছাড়াও এখানকার বন্দিদের মাথাপিছু খাবারের জন্য মাসিক বরাদ্দ ১৬ শ’ টাকা। অন্যান্য খরচ বাবদ বরাদ্দ আছে চারশ’ টাকা। কিন্তু এ বরাদ্দ সরাসরি প্রতিষ্ঠান খরচ করে না। ঠিকাদারের মাধ্যমে খরচ হয় বলে খাবার নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
এদিকে জেলা প্রশাসনের নির্দেশে সোমবার সকালে দ’ুজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে অভিযান চালায় পুলিশ। এ অভিযানে ৩টি চাকু, ২টি রড, ১টি হাতুড়ি ১০টি ভাঙ্গা তালা উদ্ধার করা হয়েছে।
সহকারী পুলিশ সুপার ও তদন্ত কমটির সদস্য মিলু মিয়া বিশ্বাস জানান, তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে। সাতদিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেয়া হবে। রোববার রাতে জেলা প্রশাসনের বৈঠকে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে আজ (সোমবার) তল্লাশির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সে মোতাবেক সকালে ঘণ্টাব্যাপী তল্লাশী অভিযান চালানো হয়। পালিয়ে যাওয়া বা নিখোঁজ হওয়া দু’ কিশোরের ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না বলে জানান।
সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহাবুদ্দীন বলেন, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। নিখোঁজ কিশোরদের ব্যাপারে থানায় জিডি করা হয়েছে।
এদিকে সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালক জুলফিকার হায়দার রোববার রাতেই ঢাকা থেকে যশোরে পৌঁছেছেন। সোমবার সকালে তিনি কেন্দ্রের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও অভ্যন্তরীণ তদন্ত শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন।

শেয়ার