বাবা-মা হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত ঐশী

Oishee
সমাজের কথা ডেস্ক॥ পুলিশ কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান এবং তার স্ত্রী স্বপ্না বেগমকে হত্যাকাণ্ডের মামলায় এখন বিচারের মুখোমুখি তাদের মেয়ে ঐশী রহমান।
তবে বিচারকের জিজ্ঞাসায় নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার চেয়েছেন এই তরুণী। আর তার আইনজীবীরা দাবি করেছেন, দায় থেকে অব্যাহিত চেয়ে ঐশীর আবেদনের শুনানির জন্য পর্যাপ্ত সময় দেয়া হয়নি।
ঐশীর সঙ্গে তার দুই বন্ধু মিজানুর রহমান জনি ও আসাদুজ্জামান রনির বিরুদ্ধেও মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে অভিযোগ গঠন হয়েছে।
তিন আসামির উপস্থিতিতে অভিযোগ গঠনের পর বিচারক মো. জহুরুল হক আগামী ৫ জুন সাক্ষ্য গ্রহণ শুরুর দিন ঠিক করেছেন।
এই মামলার অন্য আসামি ঐশীদের গৃহকর্মী খাদিজা আক্তার সুমি অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তার বিচারের ভার প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতকে দেয়া হয়েছে।
শিশু আদালত হিসেবে সেখানে তার বিচার হবে। বিচারক জাকিয়া পারভীন আগামী ২০ মে সুমীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের জন্য দিন ঠিক করেছেন।
কাঠগড়ায় দাঁড়ানো কারাবন্দি তিন আসামিকে অভিযোগ পড়ে শোনানো হলে ঐশীর মতো অন্য দুজনও নিজেদের নির্দোষ দাবি করে আদালতের কাছে ন্যায়বিচার চান।
এই মামলায় রাষ্ট্রপক্ষেরও প্রস্তুতি ছিল না দাবি করে আসামি পক্ষের আইনজীবী মাহবুব হাসান রানা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “কোনো প্রকার প্রস্তুতি না থাকা সত্ত্বেও লিখিত অভিযোগ না লিখেই দায়সারা গোছের একটি অভিযোগ পড়ে শোনানো হয় আসামিদের।”
তবে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পিপি শাহ আলম তালুকদার সাংবাদিকদের বলেন, “অভিযোগ গঠনে আইনের কোনো ব্যত্যয় হয়নি। বিচারক আইন অনুযায়ীই সঠিক আদেশ দিয়েছেন।”
ঐশীকে অব্যাহতি দেয়ার আবেদন জানিয়ে তার কৌঁসুলি মাহবুব শুনানিতে বলেন, এ মামলাটি সঠিক ও যথাযথভাবে তদন্ত না করেই অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। নিহতদের আত্মীয় ইফতেখারুল আলমের ১৬১ ধারায় তদন্ত কর্মকর্তা জবানবন্দি নিলেও অভিযোগপত্রে তাকে সাক্ষী করা হয়নি।

শেয়ার