শতাধিক স্কুলছাত্রী অপহরণের স্বীকারোক্তি বোকো হারামের

haram
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নাইজেরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় বর্নো রাজ্যের একটি স্কুল থেকে গত মাসে শতাধিক ছাত্রীকে অপহরণ করে করার দায় স্বীকার করেছে মুসলিম জঙ্গি গোষ্ঠী বোকো হারাম।
এখনো প্রায় ২৩০ জন ছাত্রীর কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। এতে করে সমালোচনার মুখে পড়েছে নাইজেরিয়া সরকার।
এএফপি’র একটি ভিডিওতে বোকো হারামের নেতা আবুবকর শেকাউ ছাত্রী অপহরণের স্বীকারোক্তি দিয়ে বলেন, আমি আপনাদের মেয়েদেরকে অপহরণ করেছি”।
গত ১৬ এপ্রিল দেশটির রাজধানী আবুজার উপকণ্ঠে ভয়াবহ বোমা হামলায় ৭৫ জন নিহত হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই বিপুল সংখ্যক ছাত্রী অপহরণের ঘটনাটি ঘটে।
চিবোক এলাকার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে চড়াও হয় জঙ্গিরা। তারা স্কুলটির পাহারায় থাকা সেনা ও পুলিশদের লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে । এর আগে স্কুলটির কয়েকটি ভবনে আগুন ধরিয়ে দেয় তারা।
রাজ্যের প্রধান শহর মাইদুগুরিতে পালিয়ে আসা চিবোকের এক শিক্ষা কর্মকর্তা ইমানুয়েল স্যাম জানান, অস্ত্রধারীদের হামলার মুখে টিকতে না পেরে নিরাপত্তা বাহিনী পিছু হটলে স্কুলের দখল নেয় জঙ্গিরা। তারপর স্কুল ছাত্রীদের জোর করে ট্রাকে তুলে নিয়ে যায় তারা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নিরাপত্তা সূত্র ঘটনার জন্য বোকো হারামকে দায়ী করেন।
উগ্রপন্থী গোষ্ঠি বোকো হারামের নামের অর্থই “পশ্চিমা শিক্ষা হারাম।”বোকো হারাম জঙ্গিরা এর আগে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালালেও এই প্রথম বিপুল সংখ্যক ছাত্রীকে অপহরণ করে।
বোকো হারামের এসব সন্ত্রাসী তৎপরতা নাইজেরিয়ার নিরাপত্তার জন্য গুরুতর হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। জঙ্গি গোষ্ঠীটি দেশটির প্রত্যন্ত এলাকায় বড় ধরনের হামলা যেমন চালাতে পারে তেমনি দেশটির প্রধান শহরগুলোতেও ভয়াবহ বোমা হামলা চালানোর সক্ষমতা দেখিয়েছে।

শেয়ার