যাত্রা শুরু নৌ-পুলিশের

Police Boat
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নৌ-পুলিশ গঠনের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে ৭৩০ জন নৌ-পুলিশকে নিয়ে শুরু হচ্ছে এ পুলিশ বাহিনীর কার্যক্রম।

শিগগিরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন।

রোববার দুপুরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ কথা বলেন, নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।

এর আগে নৌ-পথে যাত্রী ও নৌ-যান চলাচল নিশ্চিত করতে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে নৌমন্ত্রী বলেন, নৌযাত্রী ও নৌযানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকে নৌযানের ত্রুটিমুক্ত চলাচল, ভালোভাবে পরিচালনা, কালবৈশাখীর সময় সাবধানে চলাচল এবং চাঁদাবাজি ও ডাকাতি ঠেকাতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নৌপথের নিরাপত্তায় নৌপুলিশ ও কোস্টগার্ড সমন্বিতভাবে দায়িত্ব পালন করবে। নৌপথে অনেক ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ ডাকাতি রোধে নৌ, ভূমি ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বৈঠক করবে।

মন্ত্রী জানান, একজন যুগ্মসচিবকে প্রধান করে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে। চিহ্নিত করা হয়েছে ডাকাতির ঘটনার স্থানগুলো। ষোলটি জেলার অভ্যন্তরীণ নৌরুটের স্থানগুলোর মধ্যে রয়েছে, সুনামগঞ্জ থেকে আশুগঞ্জ পর্যন্ত বৈদ্যের বাজার, ষাটনল, মোক্তারপুর, গজারিয়া, মেঘনাঘাট ও বসিলা।

নৌমন্ত্রী আরও বলেন, ডাকাতির ঘটনায় সন্ত্রাসীদের তালিকা তৈরি করবে কমিটি।

শেয়ার