জার্গেনসেনের বিকল্প খুঁজতে হচ্ছে বিসিবিকে

COACH
সমাজের কথা ডেস্ক॥ আপাতত বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ পরিবর্তনের কোনো ইচ্ছাই ছিল না বোর্ডের। তবে শেন জার্গেনসেন পদত্যাগ করায় তার বিকল্প খুঁজতে হচ্ছে বলে জানান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান।
শনিবার বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে হাসপাতালে দেখতে গিয়ে কোচের পদত্যাগের ব্যাপার নিয়ে কথা বলতে হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতিকে। সেখানে তিনি কোচ খোঁজার বিষয়ে ব্যাখ্যা দেন।
“একটা কোচ পরিবর্তন করতে হলে তো বিকল্প লাগে। এ ব্যাপারে এখনো কারো সাথে কথা বলিনি। আমরা বিশেষজ্ঞ কোচ নিয়ে আলাপ-আলোচনা করছিলাম। এখন যেহেতু সে (জার্গেনসেন) পদত্যাগপত্র দিল সুতরাং আমাদের নজর এখন হেড কোচের দিকেও থাকবে।”
এই মুহূর্তে জার্গেনসেনকে পরিবর্তনের ইচ্ছা ছিল না বাংলাদেশের, হাসান সেটাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন।
“তাকে বাদ দেওয়ার মতো চিন্তা ভাবনা আমাদের মাথায় এখন পর্যন্ত আসেনি। আমাদের সামনে ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর এবং বিশ্বকাপ আছে।”
তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় বিসিবি সভাপতি ‘নতুন করে সবকিছু ঢেলে সাজানোর’ কথা বলেছিলেন। এরপর কয়েকটি গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন কোচ খুঁজছে বাংলাদেশ। শনিবার এ বিষয়টিরও ব্যাখ্যা দেন হাসান।
” আপনাদেরকে বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার আগেও বলেছি আমরা বড় ধরণের পরিবর্তন আনব। সব জায়গাতেই পরিবর্তন আসবে। কোচিং দিক দিয়ে আমরা চিন্তা করেছি যে আমাদের বোলিং-ব্যাটিং-ফিল্ডিং এর জন্য বিষেশজ্ঞ কোচ দরকার।”
বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও বিশ্বকাপের আগে কোচ পরিবর্তনের বিপক্ষেই মত দিয়েছেন। কোচকে বুঝিয়ে তার সিদ্ধান্ত বদলে থেকে যাওয়ায় রাজি করানোর কথা বলেছিলেন মুশফিক।
ঢাকায় ফিরে জার্গেনসেনও বলেন, বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করেই তবে পদত্যাগের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।
সোমবার বোর্ডের সভা আছে। জার্গেনসেনের পদত্যাগের ব্যাপারে সেখানেই আলোচনা হবে বলে জানান নাজমুল হাসান।

প্রধান কোচ পরিবর্তনের ইচ্ছা নেই বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। অধিনায়কও চান না এই মুহূর্তে নতুন কোচ আসুক। জার্গেনসেনও নরম সুরে কথা বলছেন এখন। কিন্তু জার্গেনসেনের ব্যাপারে বিসিবি সভাপতির ভাবখানা একটু যেন গা-ছাড়া ধরণেরই।

“সে যদি যেতে চায়, আমরা আটকাবো না।”

হঠাৎ করেই কোচ কেন পদত্যাগ করলেন, এটা এখনো নাজমুল হাসানের কাছে পরিষ্কার নয়।

“ইতিমধ্যেই আমরা বলেছি সে কেন পদত্যাগ করল আমরা জানি না। তার কাছ থেকে আমাদের জানতে হবে কোন কারনে শেন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

এর আগে গত সোমবার ই-মেইলে জার্গেনসেনের পদত্যাগপত্র পাওয়ার পর বিসিবির গণমাধ্যম ও যোগাযোগ কমিটির সভাপতি জালাল ইউনুস সাংবাদিকদের বলেন, হয়ত আবেগতাড়িত হয়ে কোচ এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়া থেকে ঢাকায় ফিরে জার্গেনসেন আবার বলেছিলেন, তার এই সিদ্ধান্ত আবেগতাড়িত হয়ে নয়। অনেক ভেবে চিন্তেই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান।

বিসিবি সভাপতি অবশ্য অন্যরকম ভাবছেন, “তিনটি সিরিজে পর পর খারাপ করার কারনে সবারই মন খুব খারাপ। এটাও পদত্যাগের কারন হতে পারে। বিভিন্ন দেশগুলোতে খারাপ পারফরম্যান্স করার পর তো কোচ পরিবর্তন হয়েই থাকে। আমরা এখন পর্যন্ত তেমন কোন সিদ্ধান্ত নেইনি ওকে রাখবো কি রাখবো না।”

কোচের পদত্যাগের আরো একটি কারণ থাকতে পারে বলে মনে করেন হাসান।

“শেন একবার বলেছিল, বোর্ড পরিচালকদের বিভিন্ন কথার প্রেক্ষিতে সে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ বিষয়টিকে আপনি কিভাবে দেখছেন, মতামত সবাই দিতেই পারে। এতে তো কাউকে বাধা দেওয়া যাবে না।'”

এ বিষয়টিকে টেনে উল্টো জার্গেনসেনেরই সমালোচনা করেন বোর্ড সভাপতি, “যখন কোনো বোর্ড পরিচালক মত দেয় তখন ক্রস চেক করে জেনে নেওয়া উচিত এটা পুরো বোর্ডের সিদ্ধান্ত কিনা। আমি মনে করি এই পর্যায়ের একজন হেড কোচের একজন পরিচালকের কথার উপর পদত্যাগ করে ফেলাটা ঠিক কাজ নয়।”

শেয়ার