ইউক্রেনে সংঘর্ষে ৪২ জন নিহত, ৭ পর্যবেক্ষক মুক্ত

ukrain
সমাজের কথা ডেস্ক॥ ক্রমেই সংকট ঘনীভূত হচ্ছে ইউক্রেনে। রুশ সীমান্তবর্তী অঞ্চল ছাড়িয়ে এবার সংঘাত হয়েছে কৃষ্ণ সাগর তীরবর্তী দেশটির দক্ষিণ-মধ্যাঞ্চলের শহর ওদেজায়। শুক্রবার রাত পর্যন্ত এখানকার সংঘর্ষে অন্তত ৪২ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো।
পূর্বাঞ্চল ছাড়িয়ে দক্ষিণাঞ্চলে সরকারি বাহিনী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মধ্যে এ সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ায় দেশটিতে গৃহযুদ্ধ বেধে যাওয়ার আশঙ্কা ক্রমেই জোরালো হচ্ছে।
এদিকে, শনিবার সকালে সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, বিদ্রোহী অধ্যুষিত অঞ্চল পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিতে সেনা অভিযান চালাতে কিয়েভের নির্দেশের পর দীর্ঘ আট দিন বন্দি রাখা সাত ইউরোপীয় সামরিক পর্যবেক্ষককে মুক্তি দিয়েছে রুশপন্থিরা।
সংবাদ মাধ্যমগুলো আরও জানায়, শুক্রবার ভোরে সেøাভিয়ানস্ক-ক্রামাতোরস্ক অঞ্চলে সরকারি বাহিনীর অভিযান শুরুর পর রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীরা এগিয়ে এলে সংঘর্ষ বাধে। শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত জানানো হয়, অভিযানকালে রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীরা দু’টি হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছে এবং এক পাইলট নিহত ও অপর এক পাইলট আটক হয়েছেন।
সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, অভিযান শুরুর পর সেøাভিয়ানস্ক অঞ্চলের নয়টি তল্লাশি চৌকি রুশপন্থিদের কবল থেকে মুক্ত করা হয়েছে। অপর দিকে এ অঞ্চলের তিনটি রুশপন্থি তল্লাশি চৌকির যোদ্ধাদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, তল্লাশি চৌকিগুলো এখনও রুশপন্থিদের দখলে।
স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, ফেব্রুয়ারিতে রুশপন্থি সরকারবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর শনিবার রাতেই সবচেয়ে বড় ধরনের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ করে ওদেজা শহরের ট্রেড ইউনিয়ন ভবনে অগ্নিসংযোগ করা হলে সেখানে আটকে পড়া অনেক লোকের প্রাণহানি হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে নিকটস্থ হাসপাতালগুলোতে ভর্তি করা হয়।
শুক্রবার রাতের এ ঘটনা রাশিয়ার সীমান্তবর্তী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের ঘাঁটি বলে পরিচিতি পূর্বাঞ্চল ছাড়িয়ে পুরো ইউক্রেনব্যাপী সহিংসতা ছড়ানোর আশঙ্কা বাড়িয়ে দিয়েছে।

শেয়ার