অবশেষে কালিগঞ্জে দুর্নীতিবাজ সাব-রেজিস্ট্রার খায়রুজ্জামান অপসারিত

durniti
এসএম, আহম্মাদ উল্যাহ বাচ্ছু॥ অবশেষে কালিগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে গতকাল বুধবার থেকে দলিল রেজিস্ট্রির কাজ শুরু হয়েছে। জেলা রেজিস্ট্রার (ডিআর) আব্দুল মজিদ কালিগঞ্জের বহুলালোচিত দূর্নীতিবাজ সাব-রেজিস্ট্রার আ ব ম খায়রুজ্জামানকে অপসারণ করে নতুন এক সাব-রেজিস্ট্রারকে দায়িত্ব দেয়ায় জমি ক্রেতা-বিক্রেতাদের দূর্ভোগের অবসান হয়েছে। ২ সপ্তাহ যাবত দলিল রেজিস্ট্রি বন্ধ থাকার পর সমস্যার সমাধান হওয়ায় দলিল লেখকসহ ভুক্তভোগী ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।
বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, গত ১৬ এপ্রিল নলতা মৌজার ৩ টি দলিল রেজিস্ট্রির জন্য সাব-রেজিস্ট্রার আ ব ম খায়রুজ্জামানের নিকট উপস্থাপন করা হলে তিনি ক্রেতাদের নিকট ১ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবি করেন। চাহিদা অনুযায়ী ঘুষ দিতে না পারায় দলিল রেজিস্ট্রি না করে ক্রেতাদের অফিস থেকে বের করে দেন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হোসেন বিষয়টি জানার জন্য অফিসে গেলে সাব-রেজিস্ট্রার তার সাথেও দূর্ব্যবহার করেন এবং তুড়ি মেরে উডিয়ে দেয়ার হুমকি দেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসী সাব-রেজিস্ট্রারকে প্রায় ৩ ঘন্টা অবরুদ্ধ রাখার পর পুলিশের মধ্যস্থতায় তিনি ক্ষমা চেয়ে রেহায় পান। এদিকে দুর্নীতিবাজ সাব-রেজিস্ট্রারের অপসারণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি, মানববন্ধন, প্রতিবাদ সমাবেশ, লাঠি মিছিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হতে থাকে। চলমান আন্দোলনের মুখে গত ১৭ এপ্রিল থেকে সাব-রেজিস্ট্রার আ ব ম খায়রুজ্জামান লাগাতার কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকেন। এতে জমি ক্রেতা-বিক্রেতারা চরম দূর্ভোগের মধ্যে পড়েন। বিষয়টি নিরসনের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের একজন নেতাসহ বিভিন্ন ব্যক্তি প্রচেষ্টা চালালেও তা কার্যত ব্যর্থ হয়। এক পর্যায়ে জেলা রেজিস্ট্রার গত মঙ্গলবার বিষয়টি তদন্তের জন্য কালিগঞ্জে আসলে স্থানীয় শত শত এলাকাবাসীসহ ভুক্তভোগীরা দুর্নীতিবাজ সাব-রেজিস্ট্রার এর দ্রুত অপসারণ দাবি করেন। এর প্রেক্ষিতে জেলা রেজিস্ট্রার সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ইসলামকাটিতে কর্মরত সাব-রেজিস্ট্রার শাহাদাত হোসেনকে কালিগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের জন্য অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রদান করলে বুধবার থেকে দলিল রেজিস্ট্রির কাজ শুরু হয়।

শেয়ার