সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বাহিনী প্রধান ধলুসহ দুই দস্যু নিহত॥ আটক ৬ ॥ ৯টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৫৭৫ গুলি উদ্ধার

rab shathe juddho
শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥ বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু ধলু বাহিনীর প্রধান ধলুসহ দুই দস্যু নিহত হয়েছেন। জীবিত আটক করা হয়েছে আরো ৬ দস্যুকে। উদ্ধার করা হয়েছে ৯টি আগ্নেয়াস্ত্র ৫৭৫ রাউন্ড তাজা গুলি। বন্দুকযুদ্ধের সময় র‌্যাবের এক সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে শরণখোলা রেঞ্জের ভদ্র ফরেস্ট ক্যাম্প সংলগ্ন পশুর চ্যানেল এলাকায়। বরিশাল র‌্যাব-৮ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল ফরিদুল আলম গতকাল বিকেল পাঁচটার দিকে মুঠোফোনে জানান, বনদস্যু ধলু বাহিনী দীর্ঘদিন ধরে জেলেদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে আসছিল। এ তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৮ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার গুলজার হোসেনের নেতৃত্বে জেলের ছদ্মবেশে ১৭ সদস্যের র‌্যাব দল সোমবার রাত থেকে শরণখোলা রেঞ্জের ভদ্র এলাকায় অভিযান শুরু করে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল তিনটায় পশুর চ্যানেলে মাছ ধরারত জেলেদের নৌকায় ছিল দস্যুদের চাঁদা আদায়ের নির্ধারিত সময়। আগে থেকে এ খবর পেয়ে র‌্যাব সদস্যরাও জেলে বেশে ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। নির্ধারিত সময়ে দস্যুরা চাঁদা নিতে এলে র‌্যাব তাদেরকে ঘিরে ফেলে। এসময় দস্যুরা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে এলাপাতাড়ি গুলি বর্ষণ করতে থাকে। র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালালে বাহিনী প্রধান ধলু ও অপর দস্যু বাচ্চু গুলিবিদ্ধ হয়ে নদীতে পড়ে যায়। পরে র‌্যাব সদস্যরা গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে দস্যুদের নৌকা ঘিরে ফেলে। এসময় ৬ দস্যুকে জীবিত আটক করা হয়।
পরে নদী থেকে দুই দস্যুর মৃতদেহ ও নৌকায় তল্লাশি চালিয়ে ৫টি এক নলা ও ১টি দোনলা বন্দুক, ২টি পয়েন্ট টুটুবোর এবং ১টি সিক্স শুটার রাইফেল ও ৫৭৫ রাউন্ড বিভিন্ন ধরণের তাজা গুলি উদ্ধার করা হয়। বিকেল ৩টা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত প্রায় আধা ঘন্টা ধরে চলা এ বন্দুকযুদ্ধে উভয় পক্ষের মধ্যে ১৫০ রাউন্ড গুলি বিনিময় হয়। এসময় দস্যুদের ছোঁড়া গুলিতে র‌্যাব সদস্য ফোরকান আলীর ডান পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। তবে আটক হওয়া ৬ দস্যুর নাম তাৎক্ষণিভাবে জানাতে পারেনি র‌্যাব। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বনের ওই এলাকায় অভিযান চলছিল বলে র‌্যাব সূত্র জানিয়েছে।

শেয়ার