সাকিবের নৈপুণ্যে সুপার ওভার রোমাঞ্চ

sakib
সমাজের কথা ডেস্ক॥ আইপিএলে প্রথম সুপার ওভার রোমাঞ্চটিও ‘টাই’। তবে বেশি বাউন্ডারি হাঁকানোয় সাকিব আল হাসানের কলকাতা নাইট রাইডার্সকে হারিয়ে জিতেছে রাজস্থান রয়্যালস।
রাজস্থানের পক্ষে সুপার ওভারটি করেন জেমস ফকনার। তার ওভারে ১১ রানের বেশি নিতে পারেননি সাকিব, মনিশ পাণ্ডে ও সূর্য্কুমার যাদব।
সুনীল নারায়ণের করা ওভারে ১১ রানই করেন স্টিভেন স্মিথ ও অধিনায়ক শেন ওয়াটসন। সুপার ওভারও ‘টাই’ হওয়ায় বেশি বাউন্ডারি হাঁকানোয় দুই পয়েন্ট পেয়েছে রাজস্থান।
৫ ম্যাচে খেলা এটি রাজস্থানের তৃতীয় জয়। অন্যদিকে সমান খেলায় কলকাতার তৃতীয় হার।
আগের দুই ম্যাচে না খেলা সাকিব ৪ ওভার বল করে মাত্র ২৩ রান দিয়ে নেন এক উইকেট। বাঁহাতি এই স্পিনারের শিকার মর্নে মরকেলের এক ওভারে চারটি চার হাঁকানো সঞ্জু স্যামসন।
সাকিব মাঠে নামার সময় ৩৮ বলে ৬৫ রান প্রয়োজন ছিল কলকাতার। সেখান থেকে ১২ বলে ১৬ রানের প্রয়োজনীয়তার সামনে নিয়ে এসেছিলেন দলকে।
অন্য ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় হারের শঙ্কায় পড়লেও ১৮ বলে তিন চারের সাহায্যে সাকিবের অপরাজিত ২৯ রানের সৌজন্যে হার এড়ায় কলকাতা। দুই দলের স্কোর সমান হওয়ায় খেলা গড়ায় সুপার ওভারে।
আবু ধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেটে ১৫২ রান করে রাজস্থান।
দলকে লড়াই করার মতো সংগ্রহ এনে দেয়ার কৃতিত্ব অজিঙ্কা রাহানের। শেষ ওভারে বিদায় নেয়ার আগে এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান খেলেন ৭২ রানের চমৎকার এক ইনিংস। তার ৫৯ বলের ইনিংসে ছিল ৬টি চার ও ১টি ছক্কা।
এ রান করার পথে স্যামসনের (২০) সঙ্গে ৪১ ও ও অধিনায়ক শেন ওয়াটসনের (২৪ বলে ৩৩) সঙ্গে ৬৪ রানের দুটি ভালো জুটি উপহার দেন রাহানে।
কলকাতার পক্ষে বিনয় কুমার ২ উইকেট নেন ৩০ রানে।
জবাবে ৮ উইকেটে ১৫২ রান করে কলকাতাও।
লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে অন্য প্রান্ত থেকে খুব একটা সহায়তা না পেলেও দলকে ২ উইকেটে ৮৫ রানের দৃঢ় অবস্থানে পৌঁছে দিয়েছিলেন অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর (৪৪ বলে ৪৫)। তিন রানের ব্যবধানে গম্ভীর ও মনিশ পাণ্ডের বিদায়ে অস্বস্তিতে পড়ে কলকাতা।
তবে পঞ্চম উইকেটে যাদবের সঙ্গে সাকিবের ৪৯ রানের জুটি দলকে জয়ের পথে নিয়ে এসেছিল।

১৯তম ওভারে ফকনার মাত্র ৪ রান দিয়ে যাদব (১৪ বলে ২৪), রবিন উথাপ্পা (০) ও বিনয়কে (০) ফিরিয়ে সাকিবের জন্য কাজটা ভীষণ কঠিন করে তোলেন।
প্রথম বলে চার মেরে দারুণ শুরু করা সাকিব ৩ বলে ৫ রানের প্রয়োজনীয়তার সামনে নিয়ে এসেছিলেন দলকে। আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে একটি ওয়াইড না দিলেও দুটি করে দুই নিয়ে প্রথম সুপার ওভার রোমাঞ্চ উপহার দেন সাকিব।

শেয়ার