হাই-টেক গ্যাজেট ক্যারিয়ারে গতিসঞ্চারী!

hightech
সমাজের কথা ডেস্ক॥ হাই-টেক গ্যাজেটস শুধু কর্মক্ষেত্রে ভাবমূর্তিই বাড়ায় না গতি আনে ক্যারিয়ারেও। এমনটাই বেরিয়ে এসেছে জার্নাল অফ প্রোডাক্ট ইনোভেশন ম্যানেজমেন্টের সাম্প্রতিক এক গবেষণায়।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ম্যাশএবলের প্রতিবেদন অনুযায়ী, হাই-টেক গ্যাজেট-ঘনিষ্ঠতা উদ্ধাবনী শক্তির বহিঃপ্রকাশ ঘটায়– এমনটাই বলা হয়েছে ওই গবেষণা প্রতিবেদনে। শুধু তাই নয়, প্রযুক্তিপ্রেমিদের খুব সহজেই কর্তৃত্বপূর্ণ এবং নেতৃস্থানীয় বলে বিবেচনা করে থাকেন অন্যরা।

গবেষণার অংশ হিসেবে অভিনেতাদের নিয়ে পরীক্ষা চালান বিজ্ঞানীরা। অভিনেতারা দুটি ভাগ হয়ে ভিডিও রেকর্ডিংয়ে অংশ নেন। ভিডিওতে ইন্টারভিউ নেওয়ার অভিনয় করেন তারা, এর মধ্যে কিছু অভিনেতা নোট নিতে ইলেকট্রনিক ক্যালেন্ডার ব্যবহার করেন আর কিছু অভিনেতা ব্যবহার করেন কাগজের ক্যালেন্ডার।

এরপর ওই ভিডিওগুলো টেস্ট সাবজেক্টদের দেখানো হলে, ইলেকট্রনিক ক্যালেন্ডার ব্যবহারকারীকেই ‘কর্তৃত্বপূর্ণ’ বলে বেছে নেন সবাই। দ্বিতীয় আরেকটি পরীক্ষাতেও হবি হিসেবে যারা প্রযুক্তিপণ্যের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার কথা বলেছেন তাদেরকেই বেছে নেওয়া হয়েছে ইন্টারভিউ থেকে।

তবে ওই গবেষণার চমকপ্রদ একটি তথ্য হল, হাই-টেক প্রযুক্তি ব্যবহারের আসল ক্ষমতা কতটা তা নিয়ে মাথা ঘামান না কেউই। সোজা কথায় বললে কর্মক্ষেত্রে ভাবমূর্তি বাড়াবার জন্য হাতের ডিভাইসটাই যথেষ্ট, আপনি তা আদৌ ঠিকমতো ব্যবহার করতে পারেন কী না, তা নিয়ে মাথা ঘামাবে না প্রায় কেওই।

শেয়ার