হরিণাথদত্ত লেন আইনশৃংখলা ও পরিবেশ উন্নয়ন কমিটির উদ্যোগে সংবর্ধনা ॥ জানমালের ক্ষতিসাধন করলে ছাড় দেয়া হবে না-শাহীন চাকলাদার

sha
নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার বলেছেন, আগামীতে বিনা কারণে হরতাল, মানুষের সম্পদ হানি ও জানমালের ক্ষতিসাধন করলে কোন ছাড় দেয়া হবে না। জনগণের শান্তির জন্য আওয়ামী লীগ অতীতেও সোচ্চার ছিল এবং আগামীতেও শক্ত অবস্থান নেবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। শনিবার শহরের হরিণাথদত্ত লেন বাগমারা আইনশৃংখলা ও পরিবেশ উন্নয়ন কমিটির সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শাহীন চাকলাদার দ্বিতীয় বার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় হরিণাথদত্ত লেন বাগমারা আইনশৃংখলা ও পরিবেশ উন্নয়ন কমিটি তাকে সংবর্ধনা দেয়। সংগঠনের সভাপতি অ্যাড, সুকুমার রায়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মঈদ উদ্দিনের পরিচালনা প্রধান অতিথি শাহীন চাকলাদার বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তারা সংখ্যালঘুদের শত্রু মনে করে বলেই ভোটের আগে তাদের ওপর হামলা চালায়। তাদের ভয়ভীতি দেখায়। কিন্তু এ অবস্থা চলতে পারে না। একটি ধর্মনিরপেক্ষ সুখী সমৃদ্ধ দেশ গড়ার প্রত্যয়ে ১৯৭১ সালে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্ম দেন। বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নের ফসল আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশ। ফলে দেশের কোন সংখ্যালঘুর উপর হামলা হলে তার দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে। তিনি জামায়াত শিবিরের প্রতি হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, যুদ্ধাপরাধী সাঈদীর ফাঁসি দেয়া হলে কোন নাশকতা করা হলে যশোরে কঠোর হস্তে দমন করা হবে।
এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল খালেক, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাড. আসাদুজ্জামান আসাদ, শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক আসিফ-উদ-দ্দৌলা সরদার অলোক, সদস্য রেজাউল ইসলাম রেজা, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, শহর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইমাম হাসান লাল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান বিপু ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, সহসভাপতি নিয়ামত উল্লাহ, হরিণাথদত্ত লেন বাগমারা আইনশৃংখলা ও পরিবেশ উন্নয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, রাজিবুল হোসেন, শংকর রায়, মহিন উদ্দিন প্রমুখ।

শেয়ার