মিট দ্যা প্রেসে পুলিশ সুপার ॥ ৫ অপরাধের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক কোন সুপারিশ আমলে নেয়া হবে না

police
নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে পুলিশের অভিযানে বন্দুকযুদ্ধে গত এক মাসে একজন নিহত ও অন্তত ১০জন সন্ত্রাসী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। একই সাথে এ সময় অভিযানে বিভিন্ন মামলার আসামি আটক, অস্ত্র উদ্ধার, ফেনসিডিল, হোরোইন, গাঁজা উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে।
পুলিশ সুপার আনিসুর রহমানের যোগদানের একমাস পূর্তিতে শনিবার দুপুরে সার্কিট হাউজে আয়োজিত মিট দ্য প্রেস’এ এসব তথ্য জানানো হয়। পুলিশের তথ্যমতে, গত এক মাসে জেলায় পুলিশের সঙ্গে সন্ত্রাসীদের ১১টি বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে অভয়নগরের সাইফুল ইসলাম শিকারী নামের এক চরমপন্থি সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। এছাড়াও আরও ১০টি বন্দুকযদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে শহরের কারবালা এলাকার হাফিজুর রহমান, বকচর এলাকার আল-আমিন, চান্দালী গ্রামের ইস্রাফিল, শহরের সন্যাসী দিঘীরপাড় এলাকার ইউনুস তারা, সদরের বাউলিয়া গ্রামের মুসাইদ হুসাইন, মণিরামপুরের বুলু, মনু ও মিজান ডাকাত, সদরের রুম্মান ও সেলিম ডাকাত গুলিবিদ্ধ হয়েছে।
এছাড়াও এ সময় অভিযানে বিভিন্ন মামলায় জেলায় ১ হাজার ৩৭৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এরমধ্যে জিআর পরোয়ানায় ৪৪৮জন, সিআর পরোয়ানায় ১৭২জন, সাজাপ্রাপ্ত আসামি ১৬জন, অন্যান্য মামলায় ৬১৯জন, জামায়াত শিবির ৯৭জন ও ছিনতাইকারী ২৬জনকে আটক করা হয়েছে। একই সাথে অস্ত্র, গুলি, হোরোইন, ফেনসিডিল উদ্ধারের চিত্র তুলে ধরা হয়।
মিট দ্যা প্রেসে পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, যশোরের মাদক ও সন্ত্রাসকে নিয়ন্ত্রণ করতে দুই মাস সময় চেয়েছি। এরমধ্যে একমাস কাজ করেছি। ছিনতাইকারী, মাদক, সন্ত্রাসীদের ক্ষেত্রে কোন রাজনৈতিক সুপারিশ আমলে নেয়া হবে না। মাদক, সন্ত্রাসমুক্ত জেলা গঠনে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
মিট দ্য প্রেসে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল ইসলাম ও ফয়েজ আহমে, সহকারী পুলিশ সুপার রেশমা শারমীন, প্রেসকাব সভাপতি মিজানুর রহমান তোতা, সম্পাদক আহসান কবির, সাবেক সভাপতি একরাম উদ দৌলা, কবি ফখরে আলম প্রমুখ।

শেয়ার