মাতালের ‘কবলে’ অস্ট্রেলীয় বিমান

matal
সমাজের কথা ডেস্ক॥ এক মদ্যপ যাত্রীর কবলে পড়ে নাস্তানাবুদ হয়েছে অস্ট্রেলিয়া থেকে ইন্দোনেশিয়াগামী একটি বিমান। ওই যাত্রীর কর্মকাণ্ডে পুরো বিমানে ছিনতাই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যাত্রীটিকে পরে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার বিমান সংস্থা ভার্জিনের বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি মাঝ আকাশে থাকা অবস্থায় যাত্রী ম্যাট ক্রিস্টোফার (২৮) ককপিটে ঢোকার চেষ্টা করেন বলে জানায় বিবিসি।
তার কর্মকাণ্ডে আতঙ্কিত হয়ে পাইলট ও ক্রুরা নিয়ন্ত্রণকক্ষে সম্ভাব্য ছিনতাইয়ের বার্তা পাঠায়। পরে ইন্দোনেশিয়ার বালি বিমানবন্দরে অবতরণের পর পরই ওই যাত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়।
ভার্জিন অস্ট্রেলিয়া জানায়, ক্রিস্টোফার মদ্যপ অবস্থায় বিমানে অস্বাভাবিক কর্মকাণ্ড করছিলেন এবং ককপিটে ঢোকার জন্য দরজা ধাক্কাধাক্কি করছিলেন। আর এতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেন থেকে ফ্লাইটটি ইন্দোনেশিয়ার বালি বিমানবন্দরের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল। তবে অবতরণের একঘণ্টা আগে বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে সম্ভাব্য ছিনতাইয়ের সতর্কতা আসার পরই হুলুস্থুল শুরু হয়ে যায়।
নিরাপত্তারক্ষীদের সতর্ক অবস্থানে রাখার পাশাপাশি অবতরণের জন্য কয়েকটি বিমানকে মাঝ আকাশে অপেক্ষমাণ রাখা হয়।
তবে ছিনতাইয়ের খবরকে নিছক ভুল বোঝাবুঝি বলে দাবি করেছে ভার্জিন বিমান কর্তৃপক্ষ।
“এটা কোনো ছিনতাইয়ের ঘটনা নয়; এটি ভুলবোঝাবুঝি,” বলেন এক কর্মকর্তা।
“বিমানে একজন মদ্যপ যাত্রী ছিলেন। মাদকাসক্ত হয়ে তিনি উত্তেজনাকর আচরণ করছিলেন। তিনি বিমানের ককপিটে ঢোকার চেষ্টা করছিলেন। দরজা ধরে ধাক্কাধাক্কি করলেও ভেতরে ঢুকতে পারেননি।” বিমানের ক্রুরা সঙ্গে সঙ্গে তাকে ধরে ফেলেছে।

শেয়ার