পরিত্যক্ত বোমা বিস্ফোরণে আহত ভাতুড়িয়ার রেনুকা বেগম মারা গেলেন ॥ পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ

police
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ সদরের ভাতুড়িয়ায় পরিত্যক্ত বোমা বিস্ফোরণে আহত রেনুকা বেগম (৫০) শেষ পর্যন্ত মারা গেলেন। টাকা এক সপ্তাহ যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বুধবার গভীর রাতে তার মৃত্যু হয়। চিকিৎসকরা জানান তার শ্বাসনালী বোমার স্প­ীন্টারে ছিদ্র হয়ে গিয়েছিল। অপারেশন করেও তাকে বাঁচানো যায়নি। তিনি ওই গ্রামের ফজর আলীর স্ত্রী। এদিকে পুলিশের নিশ্চুপ ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।
গত ১৭ এপ্রিল বিচলি গাদার ভেতর থেকে বোমা বিস্ফোরিত হয়ে গুরুতর আহত হন রেনুকা বেগম। দ্রুত তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরমধ্যে তার শ্বাসনালীতে একটি অপারেশন করা হয়। কিন্তু তার অবস্থার কোন উন্নতি হয়নি। শেষ পর্যন্ত তাকে চলে যেতে হলো না ফেরার দেশে। এদিকে পুলিশ বোমা রাখার সাথে কারা জড়িত থাকতে পারে তা খতিয়ে দেখতে কোন রকমের তৎপরতা দেখায়নি। এনিয়ে এলাকাবাসির মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে গতকাল রেনুকা বেগমের লাশ গ্রামে পৌঁছালে স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তাদের আহাজারীতে আশপাশের পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। তারা বোমার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

কালীগঞ্জের কাশিপুর বেদে
পল্লীতে বোমা হামলা
নিজস্ব প্রতিবেদক, কালীগঞ্জ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের কাশিপুর বেদে পল্লীতে বুধবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে বোমা হামলা হয়েছে। রাতের অন্ধকারে দৃর্বত্তরা পরপর তিনটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় এলাকাবাসী ও পথচারীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এলাকার বিবাদমান দু’গ্রুপ জুয়াড়ীর বিরোধকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটেছে বলে এলাকাবাসীর ধারণা। তবে বোমা হামলায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।
জানাগেছে, গত ২২ এপ্রিল রাতে তাসের জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপ জুয়াড়ীর মধ্যে এক সংঘর্ষে সাইফুল ও সোনাতন বিবি নামে দু’জন আহত হন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ গ্রুপকে ঘায়েল করতে বুধবার দিবাগত রাতে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় এলাকাবাসী ও পথচারীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

শেয়ার