যশোরে ৩য় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ ও হত্যা ॥ এক মাসেও আটক হয়নি খুনিরা, ক্ষুব্ধ স্বজনরা

Dhorshon
নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে আলোচিত শিশু শিক্ষার্থী ধর্ষণের পর হত্যার এক মাস পার হলেও খুনিরা কেউ আটক হয়নি। চাঞ্চল্যকার ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় পুলিশ আসামি গ্রেফতারে ব্যর্থ হওয়ায় নিহতের স্বজনদের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা বাড়ছে।
জানা যায়, ২৩ মার্চ সন্ধ্যা রাতে পড়ার টেবিল থেকে ডেকে নিয়ে দেয়াড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩য় শ্রেণির ছাত্রী ৮বছরের শিশু সাবিনা ইয়াসমিনকে পাশের একটি পটলক্ষেতে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে দেয়াড়া গ্রামের গহর আলীর ছেলে আনোয়ার হোসেন ও ইনতাজ আলীর ছেলে লাভলু। এসময় শিশুটি মারা গেলে তার লাশ পটলক্ষেতে রেখেই চলে যায় খুনিরা। পরে বিভিন্ন স্থানে খোজাখুঁজির একপর্যায়ে পাটলক্ষেতে এ শিশুটির লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী। এসময় ুব্ধ এলাকার মানুষ তাদের বাড়িতে হামলা করলে ধর্ষণকারী খুনিরা পালিয়ে যায়। এদিকে এঘটনায় পরদিন ২৪ মার্চ ওই দুই আসামির নামে যশোর কোতোয়ালি থানায় মামলা করা হয়। মামলার তদন্তের দায়িত্ব পান কোতোয়ালি থানার ওসি তদন্ত রফিকুল ইসলাম। গেল এক মাসে তিনি আসামিদের কাউকে আটক করতে পারেননি। ফলে বাদী, স্বজন ও এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, ২৩ মার্চ রাতে শিশুটির লাশ বাড়ির পাশে পটল তে থেকে উদ্ধার করার পর ুব্ধ এলাকাবাসী খুনিদের বাড়ি হামলা চালায়ে ভাংচুর করে। এরপর থেকে তারা পালাতক রয়েছে। তবে তাদেরকে আটকে সবধরনের চেষ্ঠা করা হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।

শেয়ার