বাগেরহাট কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সন্তানহারা প্রসুতি মা ও ভ্যান আটকে রেখে নার্সের অর্থ বাণিজ্য ॥ শাস্তির দাবি

doctor logo
কচুয়া (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥ বাগেরহাট কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সন্তানহারা এক হতদরিদ্র প্রসুতি মা ও তার বহনকারী ভ্যান গাড়ী আটকে রেখে দুই নার্স হাজার টাকা অর্থ-বাণিজ্য করেছেন। এনিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে চাপা উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার গোপালপুর গ্রামের সুবোধ হালদারের স্ত্রী রোববার সকালে নিজ বাড়িতে বসে সন্তান প্রসাব করেন। পরে তার স্বজনরা নবজাতককে নিয়ে কচুয়া হাসপাতালে যান কিন্তু সেখানে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন। সন্তানের মৃত্যু খবরে অসুস্থ হয়ে পড়েন প্রসুতি মা। তাকে নিয়ে পরিবারের লোকজন ১২টার দিকে হাসপাতালে নেন। সেখানে কর্তব্যরত নার্স মঞ্জুয়ারা খাতুন ও শিউলী মল্লিক রোগীর ত স্থানে সেলাই দিয়ে টাকা দাবি করেন। কিন্তু প্রসুতির পরিবার হতদরিদ্র হওয়ায় টাকা আনতে দেরী হলে ধৈর্য্য হারিয়ে নার্সদ্বয় রোগীসহ তার বহনকারী ভ্যান আটকে রাখে। পরে রোগীর পরিবার ১ হাজার টাকা দিয়ে তবেই পার পান। তবে মুহুর্তের মধ্যে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা বিুব্ধ হয়ে ওঠে। তারা টাকা টাকা ফেরৎ দেয়ার দাবি করেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত নার্স শিউলি মল্লিকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আপনার সাথে তো আমার কোন গন্ডগোল নেই, আপনি কেন আমার পিছনে লাগছেন ? বিষয়টি মিমাংসা হয়ে গেছে বলেও দাবি করেন। স্থানীয়দের অভিযোগ সরকারি এই হাসপাতালে প্রায় দিন এ ধরণের অর্থ-বাণিজ্যের ঘটনা ঘটে। ঔষুধ চুরির অভিযোগও রয়েছে কর্মরতদের বিরুদ্ধে। তারা ঘটনার তদন্ত করে শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

শেয়ার