কৃষি পরিচালকের ক্ষেত পরিদর্শন ॥ দেশে সর্বপ্রথম সুঘ্রান এলাচ চাষে সফল হয়েছেন বেনাপোলের কৃষক শাহজাহান আলী

elas photo
বেনাপোল প্রতিনিধি॥ মাছ মাংশ সহ বিভিন্ন তরকারির সুঘ্রান বাড়াতে এলাচ মসলার চাহিদা রয়েছে ব্যাপক। বাজারে এলাচ মসলার দাম ও ভ্লা। আমেরিকা চীন জাপান সহ বিদেশ থেকে আমদানী করা হয় এলাচ। বাজারে প্রতিকেজি এলাচের দাম ১২শ টাকা। এই এলাচ ফলের বাণিজ্যিকভাবে চাষ শুরু হযেছে বেনাপোলে।
বাংলাদেশে বানিজ্যিকভাবে সর্বপ্রথম সুঘ্রান এলাচ (মসলা) চাষ করে সফল হয়েছেন স্থলবন্দর বেনাপোল পাঠবাড়ী এলাকার সৌখিন কৃষক শাহজাহান আলী। ভারত চীন মিয়ানমারসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশের স্যাতসেতে উর্বর জমিতে মসলা চাষে বাম্পার ফলন ফলেছে। এলাচ মসলা চাষে উদ্বুদ্ধ হয়ে শত শত কৃষক শাহজাহান আলীর ক্ষেত থেকে মসলা গাছের চারা নিতে বুকিং দিয়েছেন।
শনিবার এলাচ মসলা তে পরিদর্শন করেছেন বগুড়া মসলা ইন্সটিটিউশনের পরিচালক ভাগ্যরানি শাহ ও প্রধান কৃষি বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডঃ কলিম উদ্দিন ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তা আশিক উদ্দিনসহ ৪সদস্যের কৃষি বিভাগের একটি টিম।
ইন্টারনেট থেকে পাওয়া সূত্র ধরে দেশীয় আবহাওয়া ও সয়েল উপযোগি করে মেধা ও পরিশ্রম খাটিয়ে বেনাপোল পাঠবাড়ী এলাকায় ৩৩ শতক জমিতে দুই জাতের এলাচ চাষ করেছেন সৌখিন কৃষক শাহজাহান আলী। বিশ্বে ১৭জাতের ইলাচের মধ্যে সবুজ কালো,নিল সাদাও বেগুনী সহ ১৩জাতের এলাচ আমদানি করা হয় বলে জানান ভাগ্যরানি শাহ। বেনাপোলে শাহজাহানের কৃষি ক্ষেতে একজাতের থুকাই থুকাই এলাজ ফল ধরেছে গাছের উপরে। অন্যজাতের ফল ধরে গাছের গোড়ায়। বেলে দোঁয়াশ জমিতে এলাচ চাষে ফলন হয়েছে ভাল। কৃষি কর্মকর্তারা বেনাপোলের মাটিতে মসলা চাষকে বাংলার আরো একটি উজ্বল সম্ভাবনা হিসাবে দেখছেন। বাংলাদেশে এই প্রথম বানিজ্যিক ভাবে সুঘ্রানের মসলা চাষ হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন কৃষি কর্মকর্তারা। এলাচ চাষে আরো বেশী গবেষনা এবং বাণিজ্যেকভাবে সরকারের পৃষ্ট পোষকতা পেলে মসলা আমদানির পরিবর্তে বিদেশে রফতানির স্বপ্ন দেখছেন সফলচাষি শাহজাহান।
বগুড়া মসলা ইন্সটিটিউশনের পরিচালক ভাগ্যরানি শাহ বলেন, কৃষক শাহজাহান আলীর এলাচ ক্ষেতে-ফল ও ফুল এসেছে। ভাল ফলন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষি বিভাগ তার সাথে সব সময় যোগাযোগ রাখছেন। বিভিন্ন প্রজাতিরর মধ্যে এ জাতটির সুঘ্রান রয়েছে ভাল।
কৃষক শাহজাহান আলী জানান,৩১শতাংশ জমিতে ৫শ’ চারা বপন করি। প্রতি চারা থেকে একটি ঝাড় প্রতি ঝাড়ে ৩০/৬০টি গাছ হয়েছে। প্রতি গাছে একটি কাঁধি বা ঝাঁকা হয়েছে। বাণিজ্যিকভাবে এলাচ চাষ করতে পারলে বিদেশ থেকে আর আমদানি করা লাগবেনা।

শেয়ার