কুমারখালীতে তরমুজ খেয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু, হাসপাতালে ১৯

tormuj
সমাজের কথা ডেস্ক॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কালোয়া গ্রামে তরমুজ খেয়ে স্মৃতি (৯) ও অনিক (১১) নামে দুই ভাই-বোনের মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় একই পরিবারের সাতজনসহ কমপক্ষে ১৯ জন অসুস্থ হয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত স্মৃতি ও অনিক কালুয়া গ্রামের আসকর আলীর সন্তান।

এ ঘটনায় ওই তরমুজ বিক্রেতাকে আটক করেছে কুমারখালী থানা পুলিশ।

তার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আসকর আলী দুপুরে কুমারখালী বাসস্ট্যান্ড থেকে তরমুজ কিনে নিয়ে বাড়িতে যান। ওই তরমুজ তার পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা এক সঙ্গে খান। এর কিছুক্ষণ পর তারা সবাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যে স্মৃতি মারা যায়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে অসুস্থদের মধ্যে অনিকের মৃত্যু হয়।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র মেডিকেল অফিসার ডা. সালেক মাসুদ জানান, ধারণা করা হচ্ছে, তরমুজে কোনো কেমিকেল দেওয়া ছিল। এতে বিষক্রিয়ার ওই শিশুর মৃত্যু হয়েছে ও ২০ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে অন্য কোনো খাদ্য গ্রহণের ফলেও এমনটি ঘটতে পারে।

শেয়ার