১২শ’ কলার কান্দি কেটে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা॥ ভেড়ামারা থানায় বাদির মামলা না নিয়ে আসামির মামলা রেকর্ড করলো পুলিশ

kola
ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপে জলার ইসলামপুর গ্রামে ওহিদুল ইসলামের স্যালো মেশিন,পাইপ, ভ্যান গাড়ী ভাংচুর ও ১২ শত কলাগাছের কান্দি কলা কেটে নিয়ে গেছে এলাকার চিন্থিত সন্ত্রাসীরা। ১২ দিনেও এ ঘটনায় ভেড়ামারা মডেল থানায় মামলা রেকর্ড হয়নি। অন্যদিকে মামলা রেকর্ড না করে পুলিশ বিবাদীর মিথ্যা মামলা রেকর্ড করায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।
ভেড়ামারা মডেল থানা ও ইসলামপুর গ্রামের মৃত নুরা মোল্লার ছেলে ওহিদুল ইসলামের লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, গোলাপনগরস্থ বাবুল মেন্বার, ডাঃ আয়েজ উদ্দিন ও বুনা মাষ্টারের কাছ থেকে প্রায় ৩৪-৩৫ বিঘা জমি খাজনায় নিয়ে তিনি কলাবাগান করেন। গত ৬ এপ্রিল’ বিকাল ৫টার সময় পুর্ব শত্র“তার জের ধরে ওহিদুল ইসলামের কলাবাগানে উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের পিনু মালিথার ছেলে রুমেন মালিথা (৩২), নিয়ামত প্ররামানিকের ছেলে নাইম প্ররামানিক (২২), আকবর সরকারের ছেলে আরিফুল (২৫), ইন্তা প্ররামানিকের ছেলে শাহিন(২৪), মৃত তাহাজ্জত প্ররামানিকের ছেলে সাইদুল (২৫), মৃত হাতেম প্ররামানিকের ছেলে লিয়াকত (২৫), মৃত আফজাল প্ররামানিকের ছেলে মনি (৩২), জুয়েল (২২), রুবেল (২২) এবং মৃত সরাফত প্ররামানিকের ছেলে উজ্জল (২০) ও মামুন (১৮)সহ আরো অনেকে ধারালো হাসুয়া, রামদা, হাত কুড়াল, লাঠি বাটাম লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ধরন্ত কলা গাছ কাটতে থাকে। ওহিদুল ইসলাম নিষেধ করলে আসামীরা তাকে হত্যার উদ্দেশে আক্রমন করলে তার চিৎকারে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে। আসামিরা এ সময় ১ হাজার ২ শত কান্দি কলা কেটে নিয়ে যায়। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। তারা স্যালো মেশিন ও প্ইাপ এবং ভ্যান ভাংচুর করে। আসামিরা প্রভাবশালী হওয়ায় বিভিন্নভাবে তাদেরকে হুমকি দিয়ে আসছে। বাদীর পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে।

শেয়ার