নড়াইল আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেট গডফাদার উজ্জলসহ আটক ৩ ॥ যশোরের রিপনসহ দু’জনকে খুঁজছে পুলিশ

motorcycal chor
লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি॥ নড়াইল আন্ত:জেলা মোটরসাইকেল চোরচক্রের সক্রিয় সদস্য বহুল আলোজিত উজ্জলসহ ৩ জন পুলিশের হাতে পাকড়াও হয়েছে। তাদের আদালতে পাঠিয়ে পুলিশ ৭ দিনের রিমান্ড চেয়েছে। পুলিশের দাবি রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে চাঞ্চল্যকর তথ্য উদ্ধার করা সম্ভব হবে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ২৭ মার্চ রাতে কাশিপুর ইউপির গিলাতলা গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান মৃত আমজাদ হোসেন খানের ছেলে ঠিকাদার মনির হোসেন সেন্টুর বাড়ির জানালার গ্রীল কেটে তার ব্যবহৃত এ্যাপাচি আরটিআর ১৫০ সিসির মোটরসাইকেলটি চুরি হয়। এ ঘটনায় মনির হোসেন সেন্টু বাদি হয়ে অজ্ঞাত চোরদের আসামি করে ২৮ মার্চ লোহাগড়া থানায় একটি চুরির মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লোহাগড়া থানার এসআই নয়ন পাটোয়ারীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ১৩ এপ্রিল অভিযান চালিয়ে নড়াইল শহরের সরকারী ভিক্টোরিয়া কলেজের পাশ থেকে সদর উপজেলার মুলদাইড় গ্রামের ফজল ভূইয়ার ছেলে কালাম ভূইয়া(২৮) ও দণি নড়াইলের বাবর আলীর ছেলে বহুল আলোচিত প্রচারক ও চোরচক্রের গডফাদার উজ্জল (২৭) কে আটক করে । পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের তারা মনির হোসেন সেন্টুর মোটরসাইকেল চুরির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। আটককৃতদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক পরে পুলিশ মুলদাইড় গ্রামের খিজির শেখের ছেলে বসির শেখ (২৯) কে আটক করে। আটক কালাম ভূইয়া পুলিশের নিকট স্বীকার করেছে, আমরা ৩ জনসহ যশোর শহরের আরএন রোডের রিপন (৩৫) ও নড়াইল সদর উপজেলার রামকান্তপুর গ্রামের ফেনসিডিল বিক্রেতা তসলিম (২৬) পরস্পর যোগসাজসে মোটরসাইকেলটি চুরি করেছিলাম। লোহাগড়া থানার এসআই নয়ন পাটোয়ারী জানান, আটককৃত কালাম, উজ্জল ও বসির ওই গাড়িটি বিক্রির জন্য পলাতক রিপন ও তসলিমের কাছে দিয়েছে। রিপন এবং তসলিমকে আটকের জন্য জোর চেষ্টা চলছে।

শেয়ার