বাংলাদেশে তরুণদের ক্ষমতায়নে যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল বাজেট!

usa flag
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বাংলাদেশে তরুণ নেতৃত্বের ক্ষমতায়ন ও সুশীল সমাজের উন্নয়নে বড় অংকের বাজেট নির্ধারণ করেছেন যুক্তরাষ্ট্র। এই খাতে কাজ করতে বেসরকারি সংগঠনগুলোর কাছ থেকে প্রকল্প বা কর্মসূচি প্রস্তাব চেয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ গণতন্ত্র, মানবাধিকার বিষয়ক ব্যুরো।

বাংলাদেশে দুটি পৃথক প্রকল্পে ৬ লাখ মার্কিন ডলার দেবে দেশটি।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের এক সরকারি নোটে ‘বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণ নাগরিক অংশীদারিত্ব বাড়ানোর’ লক্ষ্যে আগ্রহীদের প্রকল্প প্রস্তাব, ধারণাপত্র ও প্রকল্প ব্যবস্থাপনা উল্লেখ করে আবেদন করতে আহবান জানানো হয়েছে।

সুশীল সমাজ ও সংগঠনগুলোকে আরো শক্তিশালী করতে নজরদারি, জবাবদিহিতা এবং বৃহত্তর পরিসরে অহিংস পন্থায় পর্যবেক্ষণের উদ্যোগের কর্মসূচি সম্বলিত আবেদন চাওয়া হয়েছে ব্যুরো’র পক্ষ থেকে।

বাংলাদেশের সিভিল সোসাইটিকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে প্রজেক্টে বাজেট ধরা হয়েছে ৩ লাখ ডলার। এছাড়া তরুণ নেতৃত্ব’র ক্ষমতায়নে বাজেট ধরা হয়েছে আরো ৩ লাখ ডলার।

প্রস্তাবের ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশে গণতন্ত্র ও মানবাধিকার বিষয়ক ইস্যুতে কমিউনিটিকে এগিয়ে যেতে সমর্থনের উদ্যোগে নেতৃত্ব দিতে এবং সিভিল সোসাইটির সভা সমাবেশ করার সক্ষমতা তৈরি করতে হবে এ প্রকল্পের মাধ্যমে।

তবে প্রজেক্ট প্রস্তাবনায় একই ধরনের সিভিল সোসাইটির পরস্পরের মধ্যে কোয়ালিশন গঠন করে কো-অর্ডিনেশন এবং বিভিন্ন ‘সামাজিক প্লাটফর্মে’ বা বহুমাত্রিক মাধ্যমে গণসচেতনতা তৈরিতে প্রচারণার বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে।

বলা হয়েছে, প্রতিযোগিতামূলক প্রস্তাবনা রাজনৈতিক বাস্তবতা বিবেচনায় নির্দিষ্ট কার্যক্ষেত্রের যৌক্তিকতা তুলে ধরবে। অংশগ্রহণকারী গ্রুপগুলোর মধ্যে বহুমাত্রিকতা নিশ্চিত করবে। এক্ষেত্রে আগে থেকেই উদ্যোগের ভিত্তি থাকবে এবং প্রযুক্তিগতভাবে ইনোভেটিভ বা উদ্ভাবনী ক্ষমতা’র অধিকারী হবে।

এ কর্মসূচির জন্য তরুণদের বয়স সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ থেকে ৩০ বছর।

শেয়ার